২০ নভেম্বর ২০১৯

ভয়ঙ্কর সুন্দর!

তিনি বলছেন, 'সাহসী নন তিনি। শুধু কাজটি করেছেন।' কিন্তু তার কাজ দেখলে যে কেউ বলবেন, 'ভয়ঙ্কর সাহসী ব্যক্তি!'

কে এই সাহসী ব্যক্তি? কী এমন কাজ করেছেন তিনি?

তার নাম ইউয়ান রাননাচান। বয়স ৩৪ বছর। জন্ম লন্ডনে। কিন্তু ১৫ বছর ধরে বসবাস করছেন ক্যালিফোর্নিয়ায়। সান ফ্রান্সিসকোর আর্ট কলেজ থেকে ট্রেডিশনাল ইলাস্ট্রেশনের ওপর ডিগ্রী নিয়েছেন। এছাড়াও পড়াশোনা করেছেন অ্যাক্রিলিক, ডিজিটাল, এয়ারব্রাশ টেকনিক, পেন্সিল ও পেন স্কেচ নিয়ে।

এবার আসি তার কাজ নিয়ে। তার কাজ বললে ভুল হবে, তার নেশা। তিনি ভয়ঙ্কর প্রাণী শার্কের ছবি তুলে থাকেন! ঠিক শার্কের মুখ থেকে এক ফুট দুরে থেকে ছবি তুলে আনেন তিনি।

ভাবুন তো, ভয়ঙ্কর শার্কটি হাঁ করে আছে, দাঁতগুলো বেরিয়ে আছে আর আপনি ক্যামেরা নিয়ে পটাপট ছবি তুলে যাচ্ছেন।

শুনেই আঁতকে উঠছেন, তাই তো? অথচ রাননাচান কাজটি খুব মজা নিয়ে। তার অনুভূতি শুনলেই তা বুঝতে পারবেন।

তিনি বলেন, 'আমি মোটেই ভয় পাই না। শার্কের মুখ থেকে কয়েক ফুট দুরে থেকেও কোনো ভয় কাজ করে না।'

'এমন অসংখ্য মানুষ পাওয়া যাবে, যারা এটা শুনেই আতঙ্কিত হয়ে যাবেন।'

'কিন্তু আমার ছবিগুলো দেখলেই বুঝতে পারবেন, হোয়াইট শার্কগুলো দেখতে আসলে কতটা সুন্দর! আমি সব সময় বলি, এটা অসাধারণ একটি অভিজ্ঞতা। এবং আমি কাজটি করে খুব গর্ব বোধ করি। নিজেকে ভাগ্যবান মনে করি কারণ, প্রতি বছর এ কাজটি করতে পারি বলে।'

তবে তিনি এই কথাও বললেন, 'এই প্রাণীটিকে আপনি ভালোওবাসতে পারেন, আবার ভয় পেয়ে ঘৃণাও করতে পারেন। আসলে শার্ক সম্পর্কে একেকজনের একেক মত।'

শুনেছেন তো রাননাচানের কথা। এবার ছবিগুলো দেখুন। তারপর বলুন, শার্ক ভয়ঙ্কর, নাকি সুন্দর? নাকি ভয়ঙ্কর সুন্দর?

- ডেইলি মেইল


আরো সংবাদ