২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

কলকাতায় চালু হচ্ছে ‘কুকুর হোটেল’

এখন কুকুররাও হোটেলে খাবে। শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি। ২০২০ জানুয়ারি মাসের শেষের দিকেই উদ্বোধন হতে চলেছে ‘কুকুর হোটেল’।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ প্রাণী ও মৎস্য বিজ্ঞান বিশ্ববিদ্যালয় কুকুরদের সুস্বাস্থ্যের জন্য এবং কুকুরপ্রেমীদের সুবিধার্থে 'কুকুর হোটেল' চালু করছে। প্রায় ২০ থেকে ২৫টি কক্ষ বিশিষ্ট এই হোটেলটিতে কুকুরের খাবার থেকে শুরু করে তাদের জীবনযাত্রার সমস্ত সুযোগ থাকছে। সাধারণ মানুষের মতো এই হোটেলে কুকুররা বিছানা পাবে, তারপরে দুপুরের পরে সন্ধ্যা ও নৈশভোজ পরিবেশিত হবে।

এই উদ্যোগের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওএসডি ডঃ রুদ্র দেব মুখার্জি বলেন, কুকুরই মানুষের সবচেয়ে বিশ্বস্ত সহচর। তাদের পুষ্টিকর খাবার সরবরাহ করা এবং তাদের স্বাস্থ্যের যত্ন নেওয়া আমাদের দায়িত্ব। এই ভাবনা থেকেই হোটেল খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই 'ডগ হোটেল' বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের দোতলা ভবনে নির্মিত হয়েছে। ভবন নির্মাণের কাজ শেষ। বর্তমানে হোটেলটিতে পানির পাইপলাইন স্থাপন করা হচ্ছে।

কুকুরদের খাবারের পাশাপাশি তাদের থাকার ব্যবস্থাও রয়েছে। এক সাথে ২০-২৫ কুকুর থাকতে পারে। প্রতিটি ঘরে একটি রান্নাঘর এবং রাধুনি থাকছে। কুকুরের মালিকদের মেনু অনুসারে, তারা তাদের রান্না করবে। এক কথায় 'কুকুর হোটেল' হল পোষা কুকুরের থাকার হোম।

এই কুকুর হোটেলটিতে কুকুরের জন্য এসি এবং নন এসি উভয় কক্ষ রয়েছে। কুকুরদের জীবনযাত্রা অনুযায়ী রুম বুক করা যায়। মালিকের নির্দেশ ও কুকুরের পছন্দ মতো খাবার থাকবে। হোটেলে থাকা কুকুরগুলিকে নিরামিষ এবং মাংস উভয় খাবারই পরিবেশন করা হবে।

সকালে একটি সিদ্ধ ডিম দিয়ে স্যুপ পরিবেশন করা হবে। তারপরে লাঞ্চ এবং ডিনার পরিবেশন করা হবে। অবশ্যই, কুকুর মালিকের নন-ভেজ খাবারের নির্দেশ অনুসারে। যা পুরোপুরি সতেজ হবে। শুধু তাই নয়, কুকুর যদি মিষ্টি খায় তবে সে তা খেতেও পাবে।

রুদ্র দেব মুখার্জি আরো বলেন, এই ডগ হোটেল কলকাতা শহরের যারা তাদের পোষা কুকুরের জন্য বাইরে যেতে পারছেন না তাদের পক্ষে প্রচুর স্বস্তি এনে দেবে। নিশ্চিন্তায় এই হোটেলে তাদের কুকুর ছেড়ে যেতে পারে। তাদের পুরোপুরি যত্ন নেওয়া হবে। এটির পুরো ব্যবস্থা এখানে করা হয়েছে। পুবের কলম।


আরো সংবাদ