১৯ এপ্রিল ২০১৯

আদালতে যা বললেন খালেদা জিয়া

সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া - সংগৃহীত

নাইকো দুর্নীতি মামলার অভিযোগ গঠনের শুনানি শেষে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে পুরাতন কারাগারে নেওয়া হয়েছে। আদালত অভিযোগ গঠনের শুনানির পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করেছেন ১৪ নভেম্বর। বৃহস্পতিবার পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থাপিত বিশেষ জজ আদালত-৯-এ এই অভিযোগ গঠনের শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

নাইকো দুর্নীতি মামলায় বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আদালতে হাজির করার দাবি জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। আজ বৃহস্পতিবার এই মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানিতে হাজির হয়ে খালেদা জিয়া আদালতে এই দাবি করেন।

শুনানিতে খালেদা জিয়া বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রীও নাইকো দুর্নীতি মামলায় আসামি ছিলেন। কাজেই তাঁকেও এখানে হাজির করা উচিত।

এ সময় বিচারক বলেন,‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই মামলার আসামি নন। কাজেই তাঁকে এখানে হাজির করানোর কোনো প্রশ্ন ওঠে না।’

এসময় বেগম খালেদা জিয়া আদালতকে বলেন,‘আমি অসুস্থ, হুইল চেয়ারে বসে থাকতে পারছি না।’

বেলা ১১:৪০ মিনিটে শুরু হয়ে বেলা সোয়া একটা পর্যন্ত আদালতে শুনানি চলে। আদালতে খালেদা জিয়াকে হুইল চেয়ারে বসিয়ে উপস্থিত করা হয়।

এরপর এই মামলার অন্যতম আসামি ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানিতে আত্মপক্ষ সমর্থন করে বক্তব্য দেন। প্রথমে মওদুদ আহমদ আজ শুনানি না করার জন্য আদালতে একটি দরখাস্ত দেন। কিন্তু আদালত সে দরখাস্ত নামঞ্জুর করে তাঁকে শুনানিতে অংশ নিতে নির্দেশ দিলে মওদুদ আহমদ নিজের পক্ষে নিজেই শুনানিতে অংশ নেন।

শুনানিতে খালেদা জিয়ার পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া ও অ্যাডভোকেট আখতারুজ্জামান। অন্যদিকে রাষ্টপক্ষে ছিলেন প্রসিকিউটর মোশাররফ হোসেন কাজল। মামলার অন্য আসামী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ নিজের পক্ষে নিজেই শুনানি করেন।


আরো সংবাদ

rize escort bayan didim escort bayan kemer escort bayan alanya escort bayan manavgat escort bayan fethiye escort bayan izmit escort bayan bodrum escort bayan ordu escort bayan cankiri escort bayan osmaniye escort bayan