১৬ জুন ২০১৯

ঈদেও রাজু ভাস্কর্যে অবস্থান থাকবে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতদের

-

ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ ৩০১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি থেকে বিতর্কিতদের বাদ না দেয়া পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যে অবস্থান করবে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতরা। এমনকি পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিনও সেখানে অবস্থান করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন তারা।

আজ সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যে তাৎক্ষণিক প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

ছাত্রলীগে পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে বিবাহিত, মাদকাসক্ত, অছাত্রদের-অনুপ্রবেশকারীদের অবস্থান আছে অভিযোগ করে গত ১৩ তারিখ পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে দেয়ার পর থেকে এই অংশটি আন্দোলন করছেন। রোববার দিবাগত রাতে ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানাতে যাওয়া হবে এমন খবরে তারা রাজু ভাস্কর্যে অবস্থান নেন।

প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ছাত্রলীগের গত কমিটির উপ-দফতর সম্পাদক শেখ নকিবুল ইসলাম সুমন বলেন , আমরা এখানে অবস্থান করব, ঈদ আমরা ঢাকায় করার প্রস্তুতি নিয়েছি। যদি আমাদের এই সমস্যার সুষ্ঠু সমাধান না দেয়া হয় তাহলে আমরা রাজু ভাস্কর্যে অবস্থান করব। ঈদের দিন আমরা রাজু ভাস্কর্যে থাকব।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হল শাখা সভাপতি বিএম লিপি আক্তার বলেন, ‘আমি সবার সাথে আছি। যতক্ষণ পর্যন্ত আমাদের দাবি না মেনে নেওয় হয় ততক্ষণ পর্যন্ত আমরা এখানে অবস্থান করব। আমাদের মূল দাবি হলো ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্রের সাথে সাংঘর্ষিক মাদকাসক্ত, বিবাহিত, জামায়াত-শিবির পরিবারের যারা; তাদের বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ১৭ জনের একটি লিস্ট দিয়েছেন। ১১ দিন আগে তাদের নাম ঘোষণা করা হলেও তাদের পদ শূন্য ঘোষণা করা হয়নি এবং তাদেরকে নিয়ে আজকে ফুল দিতে যাচ্ছে ছাত্রলীগ। এই ঘটনার আমরা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

লিপি আক্তার আরো বলেন, ধানমণ্ডির ৩২ একটি পবিত্র জায়গা। সেখানে জাতির কলঙ্কিত যারা তাদের নিয়ে কোনোভাবে ফুল দিতে যেতে পারে না। এটা আমরা কোনোভাবেই মেনে নিতে পারি না। এসময় পাশে অবস্থান করা ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতরা ‘শেইম শেইম’ বলে নিন্দা জানান।

লিপি আক্তার বলেন, আজকে আমাদের সব থেকে কষ্টের বিষয়, মুজিব সৈনিক হিসেবে এগুলো আমি কোনোভাবেই মেনে নিতে পারি না। রাজাকারের সন্তান হয়ে ছাত্রলীগের ব্যানারে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে ফুল দিতে যাবে এটা আমাদের সমগ্র জাতির জন্য লজ্জাজনক বিষয়।


আরো সংবাদ