১৯ আগস্ট ২০১৯

ঈদের দিন দুপুরে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে রিজভীর নেতৃত্বে মিছিল 

ঈদের দুপুরে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবীতে রিজভীর মিছিল  - নয়াদিগন্ত

বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার প্রতি ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার হিংস্র আচরণ করছে বলে মন্তব্য করেছেন দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। আজ সোমবার  ঈদের দিন দুপুরে বিএনপি ও এর অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার নি:শর্ত মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

মিছিলটি নয়াপল্টনস্থ বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে শুরু হয়ে নাইটিঙ্গেল মোড় ঘুরে আবারো বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের কাছে এসে শেষ হয়। বিক্ষোভ মিছিলে নেতৃত্ব দেন বিএনপি সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

মিছিল শেষে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রুহুল কবির রিজভী বলেন, চার বারের সর্বাধিক জনপ্রিয় প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ভয়াবহ অসুস্থতার পরও এই মিডনাইটের সরকার তাঁর প্রতি আরো হিংস্র হয়ে উঠেছে। দেশের কোনো বিশেষায়িত হাসপাতালে তাকে চিকিৎসার সুযোগ না দিয়ে বরং প্রতিনিয়ত বিভিন্নভাবে জামিনে বাধা সৃষ্টি করা হচ্ছে। আজ ঈদুল আযহার দিনেও দেশনেত্রীর মনে আনন্দ নেই। কারণ জনগণের প্রিয় নেত্রীকে অন্যায় ও অবিচারমূলকভাবে কারাগারে বন্দী রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, ব্যক্তিগত আক্রোশের শিকার দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাবন্দী রেখে তিলে তিলে নি:শেষ করতে পারলেই সরকারের লক্ষ্য পূরণ নিশ্চিত হবে। কিন্তু দেশের জনগণসহ জাতীয়তাবাদী শক্তি দেশনেত্রীকে কারামুক্ত করতে প্রবল সাহস ও উদ্যম নিয়ে রাজপথে নেমে আসবে। আমি এই মূহুর্তে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নি:শর্ত মুক্তির জোর দাবি করছি।

রিজভী আরো বলেন, এই অবৈধ সরকার দেশের মানুষকে মানুষ হিসেবে গণ্য করে না। জোর করে ক্ষমতাসীন হয়ে বর্তমান সরকারপ্রধান দেশকে নিজের জমিদারী বানিয়ে ফেলেছে। সেজন্য জনস্বার্থের দিকে তাদের কোন ভ্রুক্ষেপ থাকবে না এটাই স্বাভাবিক। ডেঙ্গু সমস্যা যখন প্রকট আকার ধারণ করেছে তখন এটিকে আমলে না নিয়ে সরকারের মন্ত্রী-নেতারাসহ সিটি মেয়ররা নির্বিকার থেকেছে, তামাশা করেছে। তাদের কোন পূর্ব প্রস্তুতি ছিল না। এই কারণে ডেঙ্গু এখন মহামারী আকার ধারণ করেছে।

মিছিলে বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম, তাঁতী দলের আহবায়ক আবুল কালাম আজাদ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আরিফুর রহমান নাদিম, তাঁতী দলের সদস্য সচিব হাজী মজিবুর রহমান, মৎস্যজীবী দলের সদস্য সচিব আব্দুর রহিম, পল্টন থানা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক ফিরোজ আলম পাটোয়ারী, বিএনপি নেতা জামাল উদ্দিন, ছাত্রদল ঢাকা মহানগরের সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল ইসলাম নয়নসহ বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন সমূহের নেতাকর্মীরা অংশ নেন। 


আরো সংবাদ

শহীদ জিয়াউর রহমান কোনো হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত ছিলেন না : মির্জা ফখরুল সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত হলেন শাহজাদ ব্যাগে টাকা আছে ভেবে শারমিনকে হত্যা করে রিকশা চালক রাজু উড়াও পুঠিয়ায় কৃষককে কুপিয়ে হত্যা রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হাইকোর্টের রুল সাংবাদিক ছাড়া সংবাদপত্রের মালিকরা অস্তিত্বহীন : প্রধান বিচারপতি গ্রীনল্যান্ড বিক্রির প্রস্তাব হাস্যকর : ড্যানিশ প্রধানমন্ত্রী কাশ্মিরে খুলেছে কিছু স্কুল, উপস্থিতি খুবই কম বোয়ালখালীতে ফাঁড়ি ইনচার্জসহ ২ পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার ডেঙ্গু জ্বরের মৌসুম কি দীর্ঘায়িত হবে? হংকংয়ের বাংলাদেশীরা কী নিজেদের ভবিষ্যত নিয়ে উদ্বিগ্ন?

সকল