১০ ডিসেম্বর ২০১৯

বাস্তবিক কর্তব্য পালন ছাড়া পুরানো সমাজ ভাঙা যাবে না : সেলিম

বাস্তবিক কর্তব্য পালন ছাড়া পুরানো সমাজ ভাঙা যাবে না : সেলিম - নয়া দিগন্ত

সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেছেন, কমরেড সুনীল রায় সারাজীবন শ্রমিক-মেহনতী মানুষের মুক্তির জন্য লড়াই করে গেছেন। তিনি সেই শ্রমিক-জনতার লড়াইয়ের মধ্যেই অমর হয়ে থাকবেন। তিনি আরো বলেন, দেশের বর্তমানের এই সংকটকালে কমরেড সুনীল রায়-এর কাছ থেকে শিক্ষা নিয়ে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। বাস্তবিক কর্তব্য পালন ছাড়া পুরানো সমাজ ভাঙা যাবে না।

তিনি সবাইকে সুনীল রায়ের আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে শোষণমুক্ত সমাজ কায়েমের সংগ্রামকে অগ্রসর করার আহ্বান জানান।

ব্রিটিশবিরোধী সংগ্রামী, প্রখ্যাত শ্রমিক নেতা সিপিবি’র সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য, ঢাকা জেলা কমিটির সাবেক সভাপতি কমরেড সুনীল রায়-এর ১৮তম মৃত্যুবার্ষিকীতে আয়োজিত স্মরণসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

বুধবার সিপিবি ঢাকা কমিটির আয়োজিত মুক্তিভবনের মৈত্রী মিলনায়তনে কমরেড সুনীল রায় এর স্মরণসভায় মোসলেহউদ্দিনে সভাপতিত্বে সভায় সেলিম আরো বলেন, কমরেড সুনীল রায় ছিলেন স্পষ্টভাষী, আন্তরিক ও অত্যন্ত ধৈর্য্যশীল মানুষ। যে কারণে সবাই তাকে আপন করে নিত। 
সিপিবি’র উপদেষ্টা শহীদুলøাহ চৌধুরী বলেন, শত অত্যাচারের মুখেও কমরেড সুনীল রায় লড়াই অব্যাহত রেখেছিলেন। সাহস, সততা, নিষ্ঠার সাথে লড়াই পরিচালনার জন্য বৃহত্তর ঢাকার সকল কারখানার শ্রমিকদের কছে সুনীল রায় জনপ্রিয় নেতা হয়ে উঠেছিলেন। কমরেড সুনীল রায়ের সময়কালে শ্রমিক-জনতার ঐক্য গড়ে উঠেছিল এবং শাসকশ্রেণী শ্রমিকদের দাবি মেনে নিতে বাধ্য হয়েছিল। তিনি বলেন, ডেমরা এলাকায় দুর্ভিÿের সময় যেমন শ্রমিকরা তাদের রেশন দিয়ে দেয় তেমনি শ্রমিকদের সংকটকালেও কারখানার পার্শ্ববর্তী এলাকার গ্রামবাসী এগিয়ে এসেছিল। কমরেড সুনীল রায়কে নিজের রাজনৈতিক শিÿক উলেøখ করে শহীদুলøাহ চৌধুরী বলেন, তিনি আমার মতো হাজার হাজার সাধারণ শ্রমিককে সচেতন করে আন্দোলনের সৈনিক হিসেবে গড়ে তুলেছিলেন।
স্মরণসভায় আরও বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অধ্যাপক ডা. ফজলুর রহমান, খেলাঘর আসরের কেন্দ্রীয় নেতা রথীন চক্রবর্তী, সিপিবি ঢাকা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ডা. সাজেদুল হক রুবেল, সম্পাদকমÐলীর সদস্য সুকান্ত শফি চৌধুরী কমল। সুনীল রায়ের সংÿিপ্ত জীবনী পাঠ করেন মনিষা চক্রবর্তী। স্মরণসভা পরিচালনা করেন জাহিদ হোসেন খান। সভায় সঙ্গীত পরিবেশন করেন উদীচীর শিল্পীবৃন্দ।


আরো সংবাদ