১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

খালেদার মুক্তির দাবিতে মহাসমাবেশের ঘোষণা আইনজীবীদের

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আগামী অক্টোবর মাসে সারা দেশের আইনজীবীদের নিয়ে একটি মহাসমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছেন আইনজীবীদের অন্যতম নেতা ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার মাহবুব হোসেন।

তিনি বলেন, দেশ আজ ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। গণতন্ত্র হত্যা করা হচ্ছে। দেশে আজ অবৈধ সরকার চেপে বসেছে। দেশের মানুষ যেভাবে হত্যা ও গুম করা হচ্ছে তা বেশিদিন চলতে দেয়া যাবে না। যে কোনো সময় দেশে কালবৈশাখী ঝড় বয়ে যাবে।

তিনি আরো বলেন, গণতন্ত্র ছাড়া খালেদা জিয়ার মুক্তি হবে না। এজন্য গণবিষ্ফোরণের মাধ্যমে এই সরকারের পতন ঘটতে হবে। এজন্য দরকার সাহসী নেতৃত্ব। গণঅন্দোলনে আইনজীবীরাই সামনের সারিতে থাকবেন। দেশের মানুষ ও নেতারা তাদের সঙ্গে যোগ দেবেন। দেশের মানুষের মুক্তির জন্য ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন করা এখন সময়ের দাবি।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও গণতান্ত্রিক আন্দোলনে অংশ নেয়া বিরোধীদলীয় নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে আইনজীবীদের মহাসমাবেশ সফল করার প্রস্তুতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি সমর্থক আইনজীবীদের সংগঠন গণতন্ত্র ও খালেদা জিয়া মুক্তি আইনজীবী আন্দোলন এ সভার আয়োজন করে। সংগঠনের চেয়ারম্যান তৈমূর আলম খন্দকারের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, আইনজীবী খালেদা পান্না, ঢাকা বারের সাবেক সভাপতি গোলাম মোস্তফা, খোরশেদ মিয়া আলম, রফিক শিকদার, সংগঠনের মহাসচিব এবিএম রফিকুল হক তালুকদার রাজা, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব আনিছুর রহমান খান, সুপ্রিম কোর্ট ইউনিটের মহাসচিব আইয়ুব আলী আশ্রাফী, আইনজীবী এনায়েত হোসেন, মরতুজা চৌধুরী দুলাল, আবেদ রাজা, শাহ আহমেদ বাদল, সাবেক যুগ্ম জজ শামসুল আলম, হুমায়ুন কবির, আবদুল জব্বার ভূইয়া, মনজুর আলম, ড. ওয়াছেলুর রহমান বাবু, শহিদুল ইসলাম, নাছির উদ্দিন খান সম্রাট, মতিলাল ব্যাপারী, আরিফুল ইসলাম, আবদুল্লাহ ইউসুফ খান টিপু, আবদুল মতিন মণ্ডল, আবদুল্লা আল মাহবুব, ফজলুর রহমান, নাজমুল হাসান, মনির হোসেন প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, আমাদের সময় সংক্ষিপ্ত বেগম খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ। তিনি কারাগারে যে অবস্থায় আছেন যেকোন সময় দুঃসংবাদ আসতে পারে। আগামী অক্টোবরের মধ্যে আমরা মহাসমাবেশ করব। লাখ লাখ হাজার হাজার লোক গণতন্ত্র ও খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য প্রয়োজন নেই, আমাদের প্রয়োজন দৃড় ও ত্যাগী কর্মী বাহিনী। এই মুহুর্তে যারা গণতন্ত্র ও খালেদা জিয়ার মুক্তিতে বিশ্বাসী তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, গুম, খুন অপহরণ কি না হচ্ছে দেশে। বেগম খালেদা জিয়াকে জিবিত ও সুস্থভাবে কারাগার থেকে বের করতে হবে। একটি তারিখ ঠিক করে আইনজীবীদের মহাসবেশ করার পরিকল্পনা তৈরি করতে হবে। একই সঙ্গে তবে অতীতে আইনজীবীদের ওপর সদর ঘটারে কুলীরা যে হামলা করেছে সে কথা মনে রাখতে হবে।

তৈমূর আলম খন্দকার বলেন, আমাদের একটিই এজেন্ডা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা। আইনজীবী হিসেবে আমাদের দায়িত্ব একজন বিচারপ্রার্থীর কেন এ অবস্থা হবে। সরকার কেন বিচার বিভাগকে কুক্ষীগত করে রাখবে। দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে আইনজীবীদের রুখে দাঁড়ানো দরকার। আমরা সবাইকে নিয়ে একই লক্ষে খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য আন্দোলন করব।


আরো সংবাদ