২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯
অবৈধ ভাবে রিকশা-ভ্যানের লাইসেন্স প্রদানে নিষেধ করায়

সিংড়ায় ইউপি সচিবকে মারধর করল যুবলীগ নেতা

জানে মেরে ফেলার হুমকি
-

টাকার বিনিময়ে ইউনিয়ন পরিষদের অনুমতি ছাড়া অবৈধ ভাবে রিকশা-ভ্যানের লাইসেন্স দিতে নিষেধ করায় আজাহারুল ইসলাম নামের এক ইউপি সচিবকে মারধর ও তাকে জানে মেরে ফেলার হুমকি দেয়া হয়েছে।

উপজেলা যুবলীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আবুল বাসার আশিকের নেতৃত্বে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ের একটি রুমে দরজা আটকে দিয়ে সচিব আজাহারুল ইসলামকে মারধর করা হয়ে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে ৫ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার উপ-পরিচালক, স্থানীয় সরকার বিভাগ নাটোর ও সিংড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং সিংড়া থানায় উপজেলা যুবলীগ নেতা আবুল বাসার আশিক ও তার সহযোগী সাইদি আলমের বিরুদ্ধে পৃথক পৃথক লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সচিব আজাহারুল ইসলামের বাড়ি গুরুদাসপুর উপজেলায় হওয়ায় তিনি নিজ কর্মস্থল সিংড়ার ইটালী ইউনিয়ন পরিষদের দ্বিতীয় তলায় ডরমেটরী কক্ষে রাত্রি যাপন করেন। দীর্ঘ দিন ধরে উপজেলা যুবলীগ নেতা আবুল বাসার আশিক ইউনিয়ন পরিষদের অনুমতি ছাড়া অবৈধ ভাবে রিকশা-ভ্যানের লাইসেন্স দেয়া এবং লাইসেন্স ফি বাবদ ২০০-২৭০ টাকায় আদায় করে আসছিলো।

এবিষয়ে তাকে নিষেধ করায় গত ২৬ আগস্ট রাত ৮টায় হঠাৎ যুবলীগ নেতা আবুল বাসার আশিক ও তার সহযোগী সাইদি আলম তার রুমে প্রবেশ করে। রুমে অবস্থানরত গ্রাম পুলিশ মো: আলী আকবর ও পাহাড়াদার আবু তাহেরকে বের করে দিয়ে রুমের দরজা আটকে দেয়। পরে তাকে (সচিবকে) অপমান অপদস্থ ও মারধর করে জানে মেরে ফেলে দেয়ার হুমকি দেয়া হয়।

ইউপি সচিব আজাহারুল ইসলাম অভিযোগ দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, তাকে জানে মেরে ফেলার হুমকি দেয়ার পর থেকেই তিনি শঙ্কিত ও নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

ইউপি চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি তার জানা নেই। জেনে ব্যবস্থা নিবেন।

সিংড়া থানার ওসি মনিরুল ইসলাম বলেন, এবিষয়ে তার দফতরে দুইজনকে আসামি করে একটি অভিযোগ দেয়া হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুশান্ত কুমার মাহাতো বলেন, এবিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরো সংবাদ