১৮ অক্টোবর ২০১৯

বিয়ের প্রলোভনে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ চালকের, ব্যবহৃত মাইক্রো আটক

চালকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ, আটক মাইক্রোবাস - নয়া দিগন্ত

বগুড়ার শিবগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক মাইক্রো চালকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। পুলিশ এ কাজে ব্যবহৃত মাইক্রোটি আটক করেছে।

এজাহার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কিচক ইউনিয়নের ভাকুন্দাহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও ভাকুন্দাহার গ্রামের মো: ফজলুর রহমান বাদশার ছেলে মাইক্রো চালক মো: সাদ্দাম হোসেন (২০) পার্শ্ববর্তী ধারিয়া গ্রামের ওই কলেজছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ভালোবাসার অভিনয়ে দীর্ঘ এক বছর ধরে অনৈতিক মেলামেশা করে আসছে। এর এক পর্যায়ে অনৈতিক সম্পর্কের ঘটনা এলাকায় ফাঁস হয়ে গেলে সাদ্দাম গোপনে অন্যত্র বিয়ের প্রস্তুতি নেয়। এমন খবর পেয়ে গত ১৬ সেপ্টেম্বর ওই ছাত্রী বিয়ের দাবিতে সাদ্দামের বাড়িতে গিয়ে উঠে। বিষয়টি নিয়ে গ্রাম্য সালিশে বিয়ে করতে রাজি হয় সাদ্দাম। তবে পরে সাদ্দামকে কৌশলে ভাগিয়ে দেয়া হয়।

ওই দিনই সাদ্দামের বিরুদ্ধে মেয়েটির বাবা শিবগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগে প্রেক্ষিতে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন, আলামত উদ্ধার ও অনৈতিক কাজে ব্যবহৃত মাইক্রোটি আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

ওই ছাত্রীর বাবা জানান, তার মেয়েকে জোরপূর্বক মাইক্রোতে উঠিয়ে নিয়ে গিয়ে বিভিন্ন স্থানে ধর্ষণ করেছে সাদ্দাম। তিনি আরো বলেন, এ ব্যাপারে উস্কানি দিয়েছে ছেলের বাবা মাস্টার মো: ফজলুর রহমান বাদশাসহ তার পরিবার।

এ ব্যাপারে শিবগঞ্জ থানার ওসি মো: মিজানুর রহমান জানান, শনিবার রাতে এ ব্যাপারে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

দেখুন:

আরো সংবাদ