২৪ অক্টোবর ২০১৯

স্ত্রীর লিভারে নতুন জীবন ফিরে পেলেন বুলবুল

স্ত্রীর লিভারে নতুন জীবন ফিরে পেলেন বুলবুল - নয়া দিগন্ত

বগুড়ার সোনাতলায় স্ত্রীর লিভার স্বামীর শরীরে প্রতিস্থাপন করায় নতুন জীবন ফিরে পেলেন স্বামী বুলবুল। বুলবুলের লিভার সম্পূর্ণ অকেজো হয়ে মৃত্যু পথযাত্রী হলে চিকিৎসক তাকে লিভার পরিবর্তনের পরামর্শ দেন। স্বামীকে ছাতা হিসেবে মাথা উপর দেখতে নিজের জীবনের ঝুঁকি নেয় নুপুর। অবশেষে তার লিভার স্থাপন করা হয় স্বামীর শরীরে। ভারতের এপোলো হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে দেশে ফিরে এসেছেন ওই দম্পত্তি।

বগুড়া জেলার সোনাতলা উপজেলার দিগদাইড় ইউনিয়নের মাদারীপাড়া গ্রামের মৃত ইয়াছিন আলী তরফদারের একমাত্র পুত্র জামিলুর রহমান বুলবুলের সাথে একই উপজেলার কাতলাহার গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুল মজিদের কন্যা ও রংপুর বিএডিসি’র উপসহকারী পরিচালক মাকছুদা জাহান নুপুরের বিয়ে হয়। বিয়ের এক বছর পরে তাদের ঘরে জন্ম নেয় জাইমা রহমান ইলা (১১)। এর বছর দু’য়েক পরে তাদের আর্বিভাব ঘটে নাবিল রহমান নূরের। স্বামী-স্ত্রীর দাম্পত্য জীবন সুখের কাটছিল। এরই মধ্যে এক কঠিন ব্যাধিতে আক্রান্ত হয় জামিলুর রহমান বুলবুল। কয়েকবার পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের চেন্নাই এপোলো হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে যান তিনি। চিকিৎসক তাকে দ্রুত লিভার পরিবর্তনের পরামর্শ দেন। স্বামী বুলবুলকে এই সুন্দর পৃথিবীর আলো বাতাসে বেঁচে রাখতে নিজের লিভার স্বামীর শরীরে প্রতিস্থাপনের সিদ্ধান্ত নেয় নুপুর।

এরপর প্রায় ৫১ লাখ টাকা ব্যয়ে ভারতের চেন্নাই এপোলো হাসপাতালে স্ত্রীর শরীর থেকে লিভার নিয়ে স্বামীর শরীরে প্রতিস্থাপন করা হয় প্রায় ১ মাস পূর্বে। এই লিভার প্রতিস্থাপন করতে প্রায় ১৮ ঘন্টা সময় লেগেছে বলে নুপুর ও বুলবুল জানান। গত শুক্রবার চিকিৎসা শেষে নিজ এলাকায় ফিরে এসেছেন তারা দু’জন।


আরো সংবাদ