২০ নভেম্বর ২০১৯
বগুড়ায় বিএনপির বিশাল সমাবেশ

আন্দোলনের প্রস্তুতি নিন, শিগগিরই দুঃশাসনের অবসান হবে : সোহেল

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি হাবিব উন নবী খান সোহেল বলেছেন, আর বেশী দিন নয়, খুব শিগগিরই দুঃশাসনের অবসান হবে, কায়েম হবে সুশাসন। এ জন্য এ সরকারকে বিদায় করতে প্রয়োজন আন্দোলন। সেই আন্দোলনের জন্য আমাদের সাথে বগুড়াবাসীও প্রস্তুতি নিন। রোববার দুপুরে বগুড়া জেলা বিএনপির উদ্যোগে শহরের নবাববাড়ী রোডস্থ দলীয় কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত বিশাল সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

সমাবেশে হাবিব উন নবী খান সোহেল বলেন, আ’লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ এখন আর রাজনৈতিক দল নেই। তারা দুর্নীতি, লুটপাট, ক্যাসিনো, জুয়া, চাঁদাবাজ, মাদক ব্যবসায়ী ও খুনীর দলে পরিণত হয়েছে। তারা আগের রাতে ভোট চুরি করে রাতের আঁধারে সিঁদ কেটে ঘরে ঢোকার মতো ক্ষমতা দখল করেছে। তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিরা ছাত্রলীগকে শতকোটি টাকা চাঁদা দেন, কোটি কোটি টাকা ঈদ সেলামী দেন। যে দেশে ঠিকাদারকে এক বালিশের দাম সাত হাজার টাকা, পর্দার দাম লাখ লাখ টাকা বিল দেয়া হয়, সেই দেশের তিনবারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে দুর্নীতির সাজানো মামলায় ফরমায়েশী রায় দিয়ে জেলে রাখা হয়েছে। দেশ দুর্নীতিমুক্ত করতে প্রয়োজনে জীবন দিতে প্রস্তুত আছি।

বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা সম্পর্কে সোহেল বলেন, আবরার ফাহাদের হত্যাকারী ছাত্রলীগ নেতকির্মীদের বিচার হবে না। কারণ প্রকাশ্যে ঢাকার রাস্তায় বিশ্বজিৎ সেনকে ছাত্রলীগ কুপিয়ে হত্যা করলেও সেই হত্যাকারীদের শাস্তি হয়নি।

তিনি আরো বলেন, দিন শেষে রাতে যুবলীগের নেতৃত্বে জুয়া, ক্যাসিনো, মদের আসর নিয়ে ঢাকা আরেক শহরে পরিণত হয়। কিন্তু তাদের ব্যাপারে এতদিন কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। তাই জুয়া ক্যাসিনোর সাথে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে আদালতের কাঠগড়ায় দাঁড় করাতে হবে।

ভারতের সাথে দেশবিরোধী সকল চুক্তি বাতিল, বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার বিচার এবং বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে বগুড়া জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক অ্যাডভোকেট একেএম সাইফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য দেন ও উপস্থিত ছিলেন চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও পৌর মেয়র অ্যাডভোকেট একেএম মাহবুবর রহমান ও হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু, বিএনপি নেতা ফজলূল বারী তালুকদার বেলাল, রেজাউল করিম বাদশা, জয়নাল আবেদীন চাঁন, আলী আজগর তালুকদার হেনা, মাহবুবর রহমান হারেজ, মাহবুবর রহমান বকুল, অধ্যাপক ডাক্তার শাহ মো: শাহজাহান আলী, এম আর ইসলাম স্বাধীন, কেএম খায়রুল বাশার, হামিদুল হক চৌধুরী হিরু, ওমর ফারুক খান, তাহা উদ্দিন নাহিন, সহিদ উন নবী সালাম, মাফতুন আহমেদ খান রুবেল, মনিরুজ্জামান মনি, তৌহিদুল আলম মামুন, আহসানুল তৈয়ব জাকির, এনামুল কাদির এনাম, শামীমা আক্তার পলিন, লাভলী রহমান, আব্দুল ওয়াদুদ, খাদেমুল ইসলাম, এবিএম মাজেদুর রহমান জুয়েল, জাহাঙ্গীর আলম, আবু হাসান, নূরে আলম সিদ্দিকী রিগ্যান, মোশারফ হোসেন স্বপন, নাজমা আক্তার প্রমুখ।

সমাবেশে খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে কয়েক হাজার নেতাকর্মী অংশ নেন।


আরো সংবাদ