২৩ এপ্রিল ২০১৯

গাঁজা কেনার টাকা না পেয়ে গলায় দড়ি

গাঁজা কেনার টাকা না পেয়ে গলায় দড়ি
গাঁজা কেনার টাকা না পেয়ে গলায় দড়ি - ফাইল ছবি

দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে মোনতাজ আলী (৫০) নামে এক গাজা সেবনকারী গাঁজা কেনার টাকা না পেয়ে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

ঘটনাটি ঘটেছে গত রোববার রাতে উপজেলার ভাদুরিয়া ইউনিয়নের পারহরিনা গ্রামে।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, রোববার রাতে গাঁজা সেবন করার জন্য তার স্ত্রীর কাছে থেকে তিনি টাকা চান। টাকা না দিলে কথাকাটি হওয়ার এক পর্যায়ে স্ত্রী ও ছেলে আশরাফুল ইসলাম(খরু) কে মারধর শুরু করে তিনি। মার খেয়ে তার ছেলে আশরাফুল ইসলাম (খরু) অজ্ঞান হয়ে পড়েন। এদিকে রাত ১ টার দিকে মোনতাজ আলী ঘরে এসে বরগার সাথে দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

এ সময় বাড়ীর লোকজন চিৎকারে প্রতিবেশীরা এসে তাকে দ্রুত মাটিতে নামান। তাবে সেখানেই তিনি মারা গেছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

নবাবগঞ্জ থানা পুলিশ খবর পেয়ে লাশটিকে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠান। কি কারণে এ আত্নহত্যা তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ।

 

আরো দেখুন : স্ত্রীর মামলা থেকে বাঁচতে শ্রমিকের আত্মহত্যা
নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা; ০২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২০:০৬

যৌতুকের অভিযোগে স্ত্রীর দায়ের করা মামলা থেকে বাঁচতে আত্মহত্যা করেছেন এক হোসিয়ারি শ্রমিক। নারায়ণগঞ্জের বন্দরে শুক্রবার এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, স্ত্রীর করা মামলায় এক মাস কারাভোগ করে জামিনে বের হন হোসিয়ারি শ্রমিক কামাল হোসেন (২৫)। আগামী সোমবার আবারো সে মামলার হাজিরার তারিখ পড়ে। জামিনে বেরিয়ে স্ত্রী মৌটুসীকে বেশ কয়েকবার এ মামলা তুলে নিতে বলেছিলেন কামাল। মৌটুসী কামালের সাথে সংসার করলেও এ মামলা তুলে নিতে রাজি হয়নি। বরং স্বামীকে আবারো জেলে নেয়ার ভয় দেখায়। এ নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়াও হয়। পরে শুক্রবার রাতে স্ত্রীর শাড়ি গলায় পেঁচিয়ে নিজ ঘরের সিলিং ফ্যানের সাথে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন কামাল।

শনিবার সকালে নারায়ণগঞ্জে পুরান বন্দর প্রধান বাড়ির কামালের ঘরের সিলিং ফ্যান থেকে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে বন্দর থানা পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের ভগ্নিপতি আ. আজিজ থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেছেন। কামাল হোসেন ঐ এলাকার নাসির উদ্দিন মিয়ার ছেলে। জুবায়ের নামে তার তিন বছরের এক সন্তান রয়েছে।

জানা গেছে, ৪ বছর পূর্বে বন্দর বাড়ইপারা এলাকার খোরশেদ মিয়ার মেয়ে মৌটুসীর সঙ্গে পুরান বন্দর প্রধান বাড়ি এলাকার নাসির উদ্দিন মিয়ার ছেলে কামাল হোসেনের সঙ্গে বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই তাদের দাম্পত্য কলহের সৃষ্টি হয়।

স্বামীর সাথে বিবাদের কারণে একাধিকবার মৌটুসী পিত্রালয়ে চলে যায়। পরে কামাল বুঝিয়ে শুনিয়ে নিজ বাড়িতে নিয়ে আসে। গত বছরের নভেম্বরে মৌটুসী স্বামীর বিরুদ্ধে যৌতুক মামলা দায়ের করেন।

বন্দর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর আত্মহত্যার কারণ জানা যাবে।


আরো সংবাদ

অবসর ও কল্যাণভাতা থেকে ১০ শতাংশ চাঁদার বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠছেন শিক্ষকেরা সৌদি ও আমিরাতের সহায়তার প্রস্তাব সুদানের বিক্ষোভকারীদের প্রত্যাখ্যান হেলা করবেন না রক্তস্বল্পতাকে, বড় অসুখের শঙ্কা চাঁপাইনবাবগঞ্জে আম উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত না হওয়ার আশঙ্কা খালেদা জিয়ার প্যারোল ও সংসদে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত ইসলামী ব্যাংক স্পেশালাইজড অ্যান্ড জেনারেল হাসপাতাল নয়াপল্টনে বিনামূল্যে ঠোঁটকাটা-তালুকাটা অপারেশন ক্যাম্প অবসর সুবিধা এবং কল্যাণ ট্রাস্টের জন্য ৪ শতাংশ চাঁদা কর্তনের প্রজ্ঞাপন অযৌক্তিক ও অন্যায় : বাকশিস ও বিপিসি পাঁচ কারখানা সিলগালা, ৩৬ লাখ টাকা জরিমানা আফতাব উদ্দিন মোল্লাকে হয়রানির নিন্দা জামায়াতের শায়রুল কবির খান অসুস্থ শয্যাপাশে বিএনপি নেতারা খালেদা জিয়ার প্যারোল ও সংসদে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত

সকল




rize escort bayan didim escort bayan kemer escort bayan alanya escort bayan manavgat escort bayan fethiye escort bayan izmit escort bayan bodrum escort bayan ordu escort bayan cankiri escort bayan osmaniye escort bayan