১৯ আগস্ট ২০১৯

গোবিন্দগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি

গোবিন্দগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি - ছবি : নয়া দিগন্ত

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি ঘটেছে । উপজেলার রাখালবুরুজ ইউনিয়ন সংলগ্ন চরবালুয়া নামক স্থানে বাঙ্গালী নদী রক্ষা বাঁধের বেশ কয়েকটি স্থানে ভেঙ্গে যাওয়ায় নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। এর ফলে উপজেলার হরিরামপুর, রাখালবুরুজ, শিবপুর, নাকাই , তালুককানুপুর, মহিমাগঞ্জ, শালমারাসহ নতুন করে কামারদহ, কোচাশহর ইউনিয়ন বন্যায় প্লাবিত হয়েছে। এসব ইউনিয়নের মওসুমি ফসল সহ আমন বীজতলা পানিতে তলিয়ে গেছে। গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলায় ৫৭০ হেক্টর জমির আমন বীজতলা, ৩৬০ হেক্টর জমির রোপা আউশ, ১২০ হেক্টর জমির পাট এবং ৯০ হেক্টর জমির শাকসবজি বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল হামিদ জানান, বন্যার পানি প্রবেশ করায় ও আশ্রয় কেন্দ্র খোলার কারণে ৩১টি বিদ্যালয়ের পাঠ কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার রামকৃষ্ণ বর্মন জানান, বন্যার্তদের জন্য এ উপজেলায় সরকারিভাবে মোট ৩৫ টন চাল ও এক লক্ষ টাকা বরাদ্দ পাওয়া গেছে।

শনিবার দুপুরে পৌর শহরের কুঠিবাড়ি মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও গোলাপবাগ দাখিল মাদ্রাসায় আশ্রয় কেন্দ্র ও বোয়ালিয়া বাঁধ এলাকার বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র আতাউর রহমান সরকার। এ সময় উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকতা জহিরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি প্রধান আতাউর রহমান বাবলু, পৌর কাউন্সিলর রিমন কুমার তালুকদার, জোবাইদুর রহমান বিশা, গোবিন্দগঞ্জ প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক জাহিদুর রহমান প্রধান টুকু, মহিলা কাউন্সিলর গোলাপী বেগম, মারুফা বেগম, জহুরা বেগম, সাবেক কাউন্সিলর আলহাজ্ব আবু হেনা আসাদুজ্জামান রানু, পৌরসভার সার্ভেয়ার আনোয়ার হোসেন আকন্দসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।


আরো সংবাদ