২১ অক্টোবর ২০১৯

ভোটার উপস্থিতি নেই রংপুরের নির্বাচনে

ভোটারবিহীন একটি ভোটকেন্দ্র - ছবি : নয়া দিগন্ত

সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের এর মৃত্যুতে শূন্য হওয়া রংপুর-৩ আসনের উপ-নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শনিবার সকাল ৯ টায় শুরু হলেও ভোটারের উপস্থিতি হাতেগোনা। দুপুর ১২ টায় সর্বোচ্চ ভোট পড়েছে একটি কেন্দ্রে ১০০ টি। কেন্দ্র পরিদর্শনে ভোটারদের অনাগ্রহের এই চিত্র পাওয়া গেছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে বেলা ১১ টা ৪৫ মিনিট পর্যন্ত পুলিশ লাইন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট পড়েছে ৮৩ টি। এই কেন্দ্রে ভোটার রয়েছেন ২ হাজার ৫৯ জন। এই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার একেএম রবিউল ইসলাম এই তথ্য জানিয়ে বলেছেন, আশা করছি দুপরের পর ভোটাররা বেশি আসবেন।

এদিকে বেলা ১২ টায় লায়ন্স স্কুল এন্ড কলেজের প্রিজাইডিং অফিসার মোহাম্মদ আশরাফ জানান, এই ভোট কেন্দ্রে ২ হাজার ৮১৩ টি ভোট রয়েছে। এরমধ্যে বেলা ১২ টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে মাত্র ৭৮টি। কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের প্রিজাইডিং অফিসার ফেরদৌস আলম জানান, মোট ১ হাজার ৭৩৮ ভোটের মধ্যে বেলা ১১ টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে ৬১টি।

কেরামতিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার আজহারুল ইসলাম জানান, তার কেন্দ্রে ভোট সংখ্যা ৩ হাজার ৬৪৯টি। এর মধ্যে বেলা সোয়া বারোটা পর্যন্ত ভোট পড়েছে ২৫০ টি ভোট পড়েছে। নিসবেতগঞ্জ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের আনোয়ার আল সাদাত মোল্লা জানান, তার কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ৩ হাজার ১৭। এর মধ্যে বেলা ১২ টা ১০ মিনিট পর্যন্ত ভোট পড়েছে ২১৭ টি ।

রংপুর-৩ আসনটি সদর উপজেলার ৫ টি ইউনিয়ন এবং রংপুর সিটি করপোরেশনের ৯ থেকে ৩৩ টি মোট ২৫ টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত। এরমধ্যে নগরীর ২৫টি ওয়ার্ডে ভোটের চিত্র একই রকম হলেও ইউনিয়নগুলোতে কিছুটা ভোট বেশি পড়েছে বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা জিএম সাহাতাব উদ্দিন জানান, শহর এলাকায় ভোটার উপস্থিতি কম থাকলেও ইউনিয়নগুলোতে ভোটার উপস্থিতি বেশি আছে। দুপুরের আরও বেশি ভোটার উপস্থিত হবেন।

সাহাবাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রিজাইটিং কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন জানান, তার কেন্দ্রে মোট ভোটার ৩ হাজার ৮০৫ জন। এর মধ্যে বেলা ২টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে ৪০৮টি। অন্যদিকে সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিজাইটিং অফিসার ফরহাদুজ্জামানা জানান, মোট ২ হাজার ৭০৯ ভোটের মধ্যে বেলা ১টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে ২১৭টি।

গত ১৪ জুলাই রংপুর সদর ৩ আসনের এমপি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুর পর ১৬ জুলাই আসনটি শুন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।


আরো সংবাদ