২১ অক্টোবর ২০১৯

ঠাকুরগাঁওয়ে ঘুষের টাকাসহ শিক্ষা কর্মকর্তা ও সহকারী আটক

-

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে ঘুষ লেনদেনের সময় দুদকের হাতে আটক হয়েছেন জেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আনিছুর রহমানসহ এক অফিস সহকারী।

আজ সোমবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে দিনাজপুর দুদকের একটি টিম ঠাকুরগাঁও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে অভিযান চালিয়ে আনিছুর রহমান ও অফিস সহকারী জুলফিকার আলীকে আটক করে।

দুদক সূত্রে জানা যায়, প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষার আগে নিয়োগ পাইয়ে দেয়ার চুক্তিতে অবৈধ টাকা লেনদেন হতে পারে এমন তথ্য দুদকের কাছে আগে থেকেই ছিলো। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দুর্নীতি দমন কমিশন দুদক (দিনাজপুর)-এর উপ-পরিচালক আবু হেনা আশিকুর রহমান এবং সহকারী পরিচালক আহসানুল কবির পলাশের নেতৃত্বে দুদকের একটি দল ঠাকুরগাঁও জেলা শিক্ষা অফিসে অভিযান চালায়। সেখানে অফিস সহকারী জুলফিকার আলী ও জেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আনিছুর রহমানের মধ্যে ঘুষের ৫০ হাজার টাকা লেনদেনের সময় তাদের হাতেনাতে আটক করা হয়। পরে নির্বাহী মেজিস্ট্রেট অতিশ দর্শীর উপস্থিতিতে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত জেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আনিছুর রহমানের হাজিপাড়াস্থ বাসভবনে তল্লাসি চালায় দুদক। তবে সেখান থেকে কিছু পাওয়া যায়নি।

দিনাজপুর দুদকের সহকারী পরিচালক আহসানুল কবির পলাশ জানান, তথ্যের ভিত্তিতে তাদেরকে নগদ অর্থসহ অফিস চলাকালীন আটক করা হয়। শিক্ষক নিয়োগের সাথে ঠাকুরগাঁওয়ের কিছু কর্মকর্তা জড়িত রয়েছেন। আটককৃত দুজনকে দিনাজপুর দুদক কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদের পরে আদালতে সোপর্দ করা হবে বলেও তিনি জানান।

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার হরুনর রশিদ জানান, সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আনিছুর রহমান দীর্ঘদিন থেকে নানা ধরনের অনৈতিক ও বেআইনি কাজের সাথে জড়িত ছিলো বলে অভিযোগ রয়েছে। তার নেতৃত্বে শিক্ষক ও প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারীর একটি চক্র বিভিন্ন প্রকার অনিয়ম চালিয়ে আসছে। বিষয়টি আমি ইতোপূর্বে উর্ধ্বতন মহলে অবগত করেছি।

দেখুন:

আরো সংবাদ