২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০
স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতির ঘোষণা

‘মুক্তিযোদ্ধা ভাতা নিলে অবশ্যই আ’লীগ করতে হবে’

নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলায় শীতার্তদের মাঝে কম্বল ও শিশু শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ - নয়া দিগন্ত

মুক্তিযোদ্ধা ভাতা নিলে অবশ্যই আওয়ামী লীগ করতে হবে। তা না হলে মুক্তিযোদ্ধা ভাতা নেয়া বন্ধ করেন, আর সার্টিফিকেট ফেরত দেন। কেননা মুক্তিযোদ্ধা হয়ে মুক্তিযোদ্ধা ভাতা নিবেন আর মুক্তিযুদ্ধের বিরোধী শক্তির হয়ে রাজনীতি করবেন তা হতে দেয়া হবে না। এ ব্যাপারে সারাদেশে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা-কর্মীদের সোচ্চার হতে হবে। তাহলেই দেশ এগিয়ে যেতে পারবে। নতুবা এই স্বাধীনতা বিরোধীরা সরকারি সুবিধা নিয়ে সরকারে বিরুদ্ধেই কাজ করবে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ।

বুধবার দুপুরে নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলার শীতার্তদের মাঝে কম্বল ও শিশু শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। এসময় অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক একেএম আফজালুর রহমান বাবু, সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক নাফিউল করিম নাফা, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম আজিম।

স্বেচ্ছাসেবক লীগ সৈয়দপুর পৌর শাখার সভাপতি মহসিনুল হক মিঠুর সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন সৈয়দপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আখতার হোসেন বাদল, সাধারণ সম্পাদক মহাসিনুল হক মহসিন, পৌর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম বাবু, ইঞ্জিনিয়ার একেএম রাশেদুজ্জামান রাশেদ, নীলফামারী জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি কামরুজ্জামান কামরু, কিশোরগঞ্জ উপজেলা সভাপতি রব্বানী, সৈয়দপুর উপজেলা সভাপতি আজম আলী সরকার, সাধারণ সম্পাদক কাজী নজরুল ইসলাম রয়েল প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে নির্মল রঞ্জন গুহ আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুধু ধন্য পিতার ধন্য কন্যাই নন তিনি সাহসী পিতার সাহসী কন্যা। তাইতো তিনি নির্বাচনের আগে করা ওয়াদা মোতাবেক স্বাধীনতার শত্রু রাজাকারদের বিচার করে শাস্তি নিশ্চিত করেছেন। তার হাত ধরে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের মহাসড়কে উঠেছে। এ ধারাকে অব্যাহত রাখার মাধ্যমে দেশকে মধ্যম আয়ের দেশগুলোর কাতারে শীর্ষ পর্যায়ে নিতে তার নির্দেশনা অনুযায়ী আমাদের সকলকে কাজ করতে হবে।

তিনি বলেন, আগামীতে আমাদের কার্যক্রম হবে বাংলাদেশকে মাদক, সন্ত্রাস ও দুর্নীতিমুক্ত হিসেবে গড়ে তোলা। তাই কোন মাদকসেবী, মাদক ব্যবসায়ী, দুর্নীতিবাজ, অবৈধ কারবারী, সন্ত্রাসী স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা বা কর্মী হতে পারবে না। সে যত বড়ই দাপুটে বা প্রভাবশালী হোক না কেন তার বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে হবে।


আরো সংবাদ