১৯ জুলাই ২০১৯

ধোনি আউট হয়েছেন ‘নো’ বলে!  

-

সেমিফাইনালের দু’টি ব্যাপার নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। ছবিসহ একটা তথ্য ছড়িয়ে পড়েছে যে ধোনি যখন রান আউট হন, বৃত্তের বাইরে অতিরিক্ত ফিল্ডার ছিল নিউজল্যান্ডের। হিসাব মতো বলটা ‘নো’ হওয়া উচিত ছিল। যদিও হারের পরে এসব তথ্য খুব গুরুত্ব পাবে কি না সন্দেহ। ‘নো’ হলেও রান আউট হতে পারতেন ধোনি।
সেমিফাইনালে ভারতের পতনের পরে কথা উঠছে, বিশ্বকাপের এই ফরম্যাট ঠিক আছে কি না। গ্রুপ পর্বে সেরা হয়ে একটা দল একটা বাজে দিনের জন্য বিদায় নেবে কেন?
সৌরভ উদাহরণ দিলেন আইপিএলের। বললেন, কিছু একটা ভাবা দরকার। আইপিএলের প্রক্রিয়াটা বেশ ভালো। প্রথম দু’টি দল দু’টি করে সুযোগ পায়। একটা বাজে দিন এভাবে শেষ করে দিতে পারে না একটা ভালো দলকে। মাঠ থেকে বেরোনোর সময় রীতিমতো ভক্তদের ভিড়ের মাঝে পড়তে হয় সৌরভকে। ভারতীয় সমর্থকেরা তাকে এমনই ঘিরে ধরেছিলেন যে, নিরাপত্তা কর্মীদের ডেকে সামাল দিতে হলো। তার মধ্যেই বললেন, ‘কোহলিরা ভালো খেলেছে। গোটা টুর্নামেন্টে ভালো খেলে এক দিনের খারাপ ক্রিকেটে বিদায় নেয়াটা খুব দুর্ভাগ্যজনক। সত্যিই হতাশজনক।’ চার নম্বর নিয়ে জট পাকিয়ে থাকা কতটা ক্ষতি করল?
সৌরভ বললেন, ‘এটা ঠিক করে ফেলা উচিত ছিল আগেই। যার কথাই ভাবি না কেন, তাকে এক বছর ধরে খেলিয়ে তৈরি করা উচিত ছিল বিশ্বকাপের জন্য।’ কাপ হারানোর যন্ত্রণা কী, সৌরভ জানেন। গাড়িতে ওঠার আগে দীর্ঘশ্বাস ফেলে বলে গেলেন, ‘ভেবেছিলাম লর্ডসে ফাইনাল খেলব। কী যে হয়ে গেল!’ দিনের শেষ বিজয়ী অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন সবচেয়ে বেশি করে পাশে দাঁড়ালেন ভারতের। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে কোহলির ভারত হারিয়েছিল উইলিয়ামসনের নিউজিল্যান্ডকে। সেই ইতিহাস বদলে দিয়ে উইলিয়ামসন বলে গেলেন, ‘ভারত দারুণ দল। দারুণ সব ক্রিকেটার রয়েছে। ক্রিকেট খেলাটা অনেক আকর্ষণীয় করে তুলেছে ভারত। ভারতীয় সমর্থকদের বলব, ধৈর্য হারাবেন না।’ তিনি আরো বলেছেন, জেতায় আমরা অবশ্যই খুশি। কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেটকে অশ্রদ্ধা করার কোনো জায়গা নেই।


আরো সংবাদ