১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

শিরোপা ধরে রাখতে চায় কিশোররা

-

‘আমাদের ছেলেরা একাডেমিতে নিবিড় প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আট সপ্তাহের বেশি প্রস্তুতি নিয়েছে। তারা মানসিক ও শারীরিকভাবে তৈরি’, গতকাল বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনে (বাফুফে) অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে কথাগুলো বলেন অ্যাকাডেমির ব্রিটিশ কোচ রবার্ট মার্টিন রাইলস। টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ। আগের আসরে দেশী কোচ পারভেজ বাবু ছিলেন কোচের ভূমিকায়। এবার মার্টিন রবার্ট।
কোচ বদলালেও লক্ষ্য অভিন্ন। নিজের প্রথম মিশনেই শিরোপা অক্ষুণœ রাখার চ্যালেঞ্জ নিলেন রবার্ট। তার কথায়, ‘যেকোনো কোচের জন্যই শিরোপা ধরে রাখাটা বেশ কঠিন কাজ। আমার জন্যও তেমনি। আমি এই চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত।’
কোচের কণ্ঠেই সুর মেলালেন অনূর্ধ্ব ১৫ দলের অধিনায়ক রাকিবুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘আমরা বড় ভাইদের দেখানো পথে হাঁটতে চাই। অগ্রজরা যে শিরোপা জিতেছেন, আমরা তা ধরে রাখতে চাই।’
অনূর্ধ্ব ১৫ দলের বেশির ভাগ খেলোয়াড়ই বাফুফের অ্যাকাডেমির। তবে বাইরের দলের সাথে প্রস্তুতি ম্যাচ না খেললেও নিজেদের অ্যাকাডেমির মধ্যেই কয়েকটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে কিশোররা। আজ সকাল ৭টায় রওনা হওয়া দলের সাথে ম্যানেজার হিসেবে যাচ্ছেন সাবেক তারকা ফুটবলার মোহাম্মদ মহসীন। ২১ আগস্ট শুরু হবে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৫ দলের মিশন। ওই দিন ভারতের কলকাতার পাশের শহর কল্যাণীতে শুরু হবে পাঁচ দেশের এই টুর্নামেন্ট। ১১ দিনব্যাপী সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ কিশোর ফুটবল টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ নেপাল, ভুটান, শ্রীলঙ্কা ও স্বাগতিক ভারত।
২৩ আগস্ট ভুটানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রাখার মিশন শুরু করবে লাল-সবুজ জার্সিধারী কিশোররা। গতবারের রানার্সআপ পাকিস্তান এবার খেলছে না এই টুর্নামেন্টে। পাঁচ দেশ অংশ নিচ্ছে বলে বদলে গেছে ফিকশ্চার। এবার দলগুলো খেলবে রাউন্ড রবিন লিগ ভিত্তিতে। ২৩ আগস্ট ভুটান, ২৫ আগস্ট শ্রীলঙ্কা, ২৭ আগস্ট নেপাল ও ২৯ আগস্ট ভারতের বিপক্ষে খেলবে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ। সর্বোচ্চ পয়েন্টধারী দু’টি দেশ ফাইনাল খেলবে। ৩১ আগস্ট অনুষ্ঠিত হবে টুর্নামেন্টের ফাইনাল ম্যাচ।
আগের পাঁচ আসরের দু’বার চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল বাংলাদেশ। ২০১৫ সালে সিলেটে অনুষ্ঠিত ফাইনালে ভারতকে টাইব্রেকারে ৪-২ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় স্বাগতিকরা। নির্ধারিত সময়ের খেলা ১-১ গোলে ড্র ছিল। গত বছর নেপালে অনুষ্ঠিত এই টুর্নামেন্টের ফাইনালে পাকিস্তানকে টাইব্রেকারে ৩-২ গোলে হারিয়ে ফের শিরোপা পুনরুদ্ধার করে লাল-সবুজের কিশোররা। এখানেও নির্ধারিত সময়ের খেলা ১-১ গোলে ড্র ছিল। এবার লাল-সবুজের কিশোরদের লক্ষ্য শিরোপা অক্ষুণœ রাখা।


আরো সংবাদ