১১ ডিসেম্বর ২০১৯

খুব ভালো লাগবে এবাদতের

-

বহুমুখী প্রতিভার সমন্বিত রূপ এবাদত হোসেন। টেনিস বলে হাতেখড়ি ক্রিকেটে। ভলিবল খেলোয়ার থেকে বাংলাদেশ এয়ারফোর্সের সৈনিক। এ মুহূর্তে চলমান ভারত সফররত টিম টাইগারের পেস ইউনিটের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হিসেবে অন্যতম আলোচিত নাম এবাদত হোসেন। তার ক্রিকেটীয় উত্থানের গল্প অনায়াসেই তুলনার যোগ্য রূপকথার চিত্রনাট্যের সাথে। আজকের অবস্থানে পৌঁছাতে তাকে যথেষ্ট চড়াই-উতরাই পাড়ি দিতে হয়েছে। কঠোর অধ্যবসায় স্বপ্নপূরণে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে বলেই সাফ জানিয়ে দিলেন এবাদত। পেস বোলার হিসেবে শীর্ষ পর্যায়ের ক্রিকেটে প্রতিষ্ঠা পাওয়ার চ্যালেঞ্জে অস্ট্রেলিয়ান গতি দানব ব্রেট লিকে ‘আইডল’ হিসেবে গ্রহণ বাড়তি প্রেরণা জুগিয়েছে বলেও জানালেন ২৫ বছর বয়সী টাইগার পেসার। ইন্দোরে ভারত-বাংলাদেশ প্রথম টেস্ট সামনে রেখে দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে তুলে ধরেছেন কণ্টকাকীর্ণ ক্যারিয়ারের পথচলার গল্প।
এবাদত হোসেন বলেন, ‘আমি বিমান বাহিনীর একজন সৈনিক। এটি স্থায়ী চাকরি। আমি ও আমার পরিবারের জন্য চাকরির বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।’ ক্রীড়া কোটার অংশ হিসেবে ২০১২ সালে ভলিবল খেলোয়াড় এবাদতের সৌভাগ্য হয় বাংলাদেশ বিমান বাহিনীতে যোগদানের। নিয়মিত প্রতিনিধিত্বও করছেন সংস্থাটির প্রধান দলের জার্সিতে স্থানীয় ফরম্যাটের টুর্নামেন্টে। তবে বাংলাদেশ জাতীয় ভলিবল দলের পক্ষে এখনো খেলা হয়নি টাইগার পেসারের। রবির অর্থায়নে বিসিবির ২০১৬ সালের ‘পেসার হান্ট’ ক্যাম্পেইনে অংশগ্রহণ ক্রীড়া জীবনের নতুন বাঁক নেয়ায় যুগন্তকারী ভূমিকা পালন করেছে বলে দাবি করেছেন এবাদত হোসেন। স্থানীয় পর্যায়ের প্রাথমিক বাধা টপকে ঢাকায় এক সপ্তাহের ক্যাম্পিংয়ে পাকিস্তানি সেনসেশন আকিব জাভেদের নিবিড় তত্ত্বাধয়ন ক্যারিয়ারের আলোচিত শিক্ষানবিশ সময় বলেও জানান টাইগার পেসার।
এবাদত বলেন, পেসার হান্টে সর্বোচ্চ ১৩৯.৯ কিলোমিটার গতিতে বোলিং করায় সবার নজরে পড়ে যায়। প্রথমবারের মতো ফাস্ট বোলার হিসেবে বাংলাদেশের জার্সিতে সর্বোচ্চ উজাড় করে দেয়ার আত্মবিশ্বাসও অনুভূত হতে থাকে আমার ভেতরে। তবে সব কিছুই ছিল অনিশ্চিত। ঢাকা পর্বের প্রথম তিন দিন আকিব জাভেদ নতুন বলে প্রত্যাশিত পারফর্ম করার পদ্ধতি সম্পর্কে আমাকে বিস্তারিত অবহিত করেন। অবশিষ্ট চার দিন চলে রিভার্স সুইংয়ের কৌশল ও প্রয়োগের ফর্মুলা নিয়ে নিবিড় অনুশীলন। ক্যাম্প শেষে আকিব জাভেদের মুখে প্রশংসা আমার আত্মবিশ্বাস আরো বাড়িয়ে দেয়। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের পেস অ্যাটাকের ভবিষ্যত তারকা হয়ে ওঠার মতো সুঠাম দেহ, তীব্র গতি ও অপরিহার্য অ্যাকশন এবাদতের মধ্যে রয়েছে। কিন্তু কোচরা আমাকে বিমান বাহিনীতে প্রত্যাবর্তনের ব্যাপারে নির্দেশনা দেন। বন্ধ হয়ে যায় আমার ক্রিকেট অনুশীলন।’
এবাদতের জন্মগত ক্রিকেট প্রতিভা বিষয়ে আকিব জাভেদের পারফেক্ট মূল্যায়ন শেষ পর্যন্ত ‘এক্স ফ্যাক্টর’ ভূমিকা পালন করেছে টাইগার পেসারের পুনরুত্থানের পেছনে। বিমান বাহিনীর পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক অনুমোদন লাভের পর ঘরোয়া ক্রিকেটের পারফরম্যান্স নিশ্চিত করেছে চলতি বছরের শুরুতে ২৫ বছর বয়সী খেলোয়াড়ের টেস্ট অভিষেক। এবাদত বলেন, ‘আকিব স্যারের বিশ্লেষণ সম্পর্কে জানার পর বিমান বাহিনীর প্রাথমিক অনিচ্ছা দ্রুততম সময়েই বিলীন হয়েছে। স্পষ্ট মনে পড়ছে একজন বালক হিসেবে প্রথমে দেখার পরমুহূর্ত থেকেই ব্রেট লির অ্যাকশনের প্রতি কতটা ভালোবাসা তৈরি হয়েছিল। কখনো তাকে কপি করার চেষ্টা করিনি। তবে শারীরিক গঠনে মিল থাকায় প্রাকৃতিভাবেই সাদৃশ্য বিদ্যমান আমাদের অ্যাকশনে। দু’বার অস্ট্রেলিয়াতে গিয়েছি। কিন্তু তার সাথে দেখা করতে পারিনি। খুবই ভালো লাগবে সরাসরি লির মুখোমুখি হতে।’


আরো সংবাদ