০৭ ডিসেম্বর ২০১৯

‘পজেটিভ’ মুমিনুল

-

অধিনায়ক হিসেবে অভিষেকেই ‘যন্ত্রণাকাতর’ পরাজয়ের নিষ্ঠুরতার অন্তর্ভুক্তি ঘটল মুমিনুলের ক্রিকেট অধ্যায়ে। ইন্দোর টেস্টে টাইগারদের অসহায় আত্মসমর্পণের চিত্রনাট্য ইতোমধ্যেই তার ব্যক্তিগত জীবনের অন্যতম ‘অপ্রত্যাশিত’ চিত্রনাট্যের শূন্যতা পূরণ করেছে। ক্যারিয়ারের সবচেয়ে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে আত্মবিশ্বাস অটুট রাখার ক্ষেত্রে কোনো আপস করতে রাজি নন টাইগার অধিনায়ক। ন্যূনতম লড়াইয়ের মানসিকতার প্রদর্শনী ছাড়াই প্রথম টেস্টের পরাজয়ের মধ্যেও নতুন করে স্বপ্ন দেখার মতো অনেক সম্ভাবনার উদ্ভাব ঘটেছে বলেই দাবি করেছেন বাংলাদেশের দলনায়ক। লংগার ফরম্যাটের উদ্বোধনী খেলার ফলাফলে নির্ধারণে টস গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। দল হিসেবে বাংলাদেশের প্রত্যাশিত নৈপুণ্যে প্রদর্শনের ব্যর্থতার পেছনে টস জেতার পর ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে বাড়তি চ্যালেঞ্জ নেগেটিভ প্রভাব রেখেছে বলে জানান টেস্ট ভার্সনের সদ্য নির্বাচিত মুমিনুল।
গতকাল টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে অভিষেকের ইন্দোর টেস্টে বাংলাদেশের ইনিংস ও ১৩০ রানের হারের দুঃস্বপ্ন হজম করেছেন মুমিনুল। তিন দিনের আগেই ভারতীয়দের জয়োৎসব নির্বাক দর্শক এই তারকা ব্যাটসম্যান। খেলা শেষে তিনি বলেন, ‘ফলাফলে অবশ্যই টস গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে। কঠিন অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হয়েছি সবক্ষেত্রেই। টস জিতেছি। ব্যাটিং নিয়েছি। তবে প্রথমে ব্যাটিং নেয়ার সিদ্ধান্ত কঠিন ছিল। তবে একতরফা পরাজয়ের মধ্যে অনেক পজেটিভও দেখতে পাছি। জায়েদ ৪ উইকেট নিয়েছে। দুই ইনিংসেই মুশফিক ভালো ব্যাটিং করেছেন। লিটনের খেলায় ছন্দে ফেরার ইঙ্গিত রয়েছে।’
কম করে হলেও প্রথম দুই দিন বোলারদের জন্য কঠিন পরীক্ষার মঞ্চ ভারতের টেস্ট ম্যাচের উইকেট। বিষয়টি বহু আগেই ‘ওপেন সিক্রেট’ বাস্তবতা হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেয়েছে ক্রিকেট অঙ্গনে। হোম ভেনুর খেলায় স্পিন বান্ধব পিচ তৈরির গেমপ্ল্যান লংগার ভার্সনের লড়াইয়ের শুরুতেই সফরকারী বোলিং বিভাগের সামনে উদ্ভাসিত হয়েছে সহজাত নৈপুণ্য প্রদর্শনের বাড়তি চ্যালেঞ্জ।
ক্ষেত্রবিশেষে ভারতীয় বোলাররাও অনাকাক্সিক্ষত স্নায়ুচাপের ফাঁদে আটকা পড়েছেন প্রত্যাশিত পারফরম্যান্স উপহার দেয়ার মিশন বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে। অন্য দিকে সেøা উইকেটে খেলার বাড়তি অ্যাডভ্যান্টেজ কাজে লাগিয়ে টেস্ট ফরম্যাটের ব্যাটিংয়ের ইতিহাসে চোখ-ধাঁধানো সব সাফল্যের নজির গড়েছেন দেশটির ব্যাটসম্যানেরা। সুদীর্ঘ কাল থেকে বহমান ভারতীয় ভেনুর পাঁচ দিনের ম্যাচের ওই ঐতিহাসিক ধারাবাহিকতার সর্বশেষ নিদর্শন ইন্দোরে অনুষ্ঠিত ভারত-বাংলাদেশ টেস্ট সিরিজের উদ্বোধনী দ্বৈরথ। ব্যাটসম্যানদের দায়িত্বহীনতা প্রমাণের উৎসব নিশ্চিত করেছে তৃতীয় দিনের নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার আগেই সফরকারীদের অসহায় পরাজয়। মাত্র ৪ সেশনেই পতন হয়েছে বাংলাদেশের ২০ উইকেটের। অন্য দিকে একই পিচে রান উৎসবের ৪ সেশন ব্যাটিংয়ের ভারত হারিয়েছে মাত্র ৬ উইকেট। তরুণ আগারওয়াল ডাবলের কৃতিত্ব দেখান উইকেটে সাবলীল মুভমেন্ট বজায় রেখে। আসন্ন কলকাতা টেস্টে একটি ইউনিট হিসেবে ব্যাটসম্যানদের পারফরম করার ক্ষেত্রে টপঅর্ডারকে দায়িত্ব নিয়ে খেলার আহ্বান রেখেছেন টাইগার অধিনায়ক মুমিনুল। তিনি বলেন,‘ ওপেনিং জুটির কম করে হলেও ২০-২৫ ওভার ব্যাটিং করার বিকল্প দেখছি না। প্রথম দিবারাত্রির টেস্ট উপভোগ করার প্লানেই খেলব।’

স্কোর কার্ড
বাংলাদেশ-ভারত
প্রথম টেস্ট
টস : বাংলাদেশ
বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস : ১৫০/১০, (৫৮.৩ ওভার) (মুশফিক ৪৩, মুমিনুল ৩৭, লিটন ২১, মিথুন ১৩, মাহমুদুল্লাহ ১০; সামি ৩/২৭, শর্মা ২/২০)।
ভারত প্রথম ইনিংস : ৪৯৩/৬ ডিক্লে., (১১৪ ওভার) (আগারওয়াল ২৪৩, রাহানে ৮৬, জাদেজা ৬০, পুজারা ৫৪; আবু জায়েদ ৪/২৫, এবাদত ১/৩১, মিরাজ ১/২৭)।
বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংস
রান বল ৪ ৬
সাদমান ব শর্মা ৬ ২৪ ০ ০
ইমরুল ব জাদব ৬ ১৩ ১ ০
মুমিনুল এলবিডব্লিউ ব সামি ৭ ২০ ১ ০
মিথুন ক আগারওয়াল ব সামি ১৮ ২৬ ৪ ০
মুশফিক ক পুজারা ব আশ্বিন ৬৪ ১৫০ ৭ ০
মাহমুদুল্লাহ ক শর্মা ব সামি ১৫ ৩৫ ২ ০
লিটন ক ও ব আশ্বিন ৩৫ ৩৯ ৬ ০
মিরাজ ব জাদব ৩৮ ৫৫ ৫ ১
তাইজুল ক সাহা ব সামি ৬ ৪৩ ১ ০
আবু জায়েদ অপরাজিত ৪ ৯ ১ ০
এবাদত ক জাদব ব আশ্বিন ১ ৩ ০ ০
অতিরিক্ত (বা-২, লেবা-৯, নো-১, ও-১) ১৩
মোট (অলআউট, ৬৯.২ ওভার) ২১৩
উইকেট পতন : ১/১০, ২/১৬, ৩/৩৭, ৪/৪৪, ৫/৭২, ৬/১৩৫, ৭/১৯৪, ৮/২০৮, ৯/২০৮, ১০/২১৩।
বোলিং : শর্মা ১১-৩-৩১-১, জাদব ১৪-১-৫১-২, সামী ১৬-৭-৩১-৪, জাদেজা ১৪-২-৪৭-০, আশ্বিন ১৪.২-৬-৪২-৩।
ফল : ইনিংস ও ১৩০ রানে জয়ী।
ম্যান অব দ্য ম্যাচ : মায়াঙ্কা আগারওয়াল

 


আরো সংবাদ