১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

জসপিনকে পেতে চায় বসুন্ধরা কিংস

-

তিন ম্যাচে সাত গোল। এর মধ্যে হ্যাটট্রিক দু’টি। এই ঈর্ষণীয় পারফরম্যান্সই জসপিন শিমিরিমানাকে বানিয়ে দিয়েছে এবারের বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের সবচেয়ে বড় তারকায়। ঠাণ্ডা মাথায় গোল করার জন্য দক্ষ তিনি। পজিশন সেন্স, গতি আর স্কিল, বুরুন্ডির ফুটবলারটির এসব কিছুই মুগ্ধ করেছে ফুটবলপ্রেমীদের। তাকে দলে টানার চিন্তাভাবনাও শুরু করেছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের ক্লাব বসুন্ধরা কিংস। তাকে পেতে যোগাযোগ শুরু করেছে তারা। আজ ফাইনাল ম্যাচে তার খেলা দেখতে কোচ অস্কার ব্রুজনকে মাঠে পাঠাবে বসুন্ধরা কিংসের কর্মকর্তারা। এ দিকে শুধু বাংলাদেশী ক্লাবই নয় ইতোমধ্যে ইউরোপের তিনটি এবং আফ্রিকান দেশ মরক্কোর ক্লাব তাকে পেতে ফোন দিয়েছে ঢাকায় আসা বুরুন্ডি দলের ম্যানেজার কনস্টন্টিন মোতেম্বাকে। মোতেম্বাই কাল জানান এই তথ্য। এই তিন ইউরোপিয়ান দেশ হলো তুরস্ক, বেলজিয়াম ও ফ্রান্স। আফ্রিকান দেশটি মরক্কো। যদিও বসুন্ধরা কিংস এখনো মোতেম্বার সাথে কথা বলেনি। মোতেম্বা নিজেকে দলের ম্যানেজারের পাশাপাশি ফিফা স্বীকৃত এজেন্ট বলে উল্লেখ করলেন।
বসুন্ধরা কিংসের সভাপতি ইমরুল হাসান জানান, আমাদের খুব পছন্দ হয়েছে বুরুন্ডির ২০ নং জার্সিধারী জসপিনকে। এখন আমাদের কোচ অস্কার ব্রুজন তাকে পাস মার্ক দিলেই হলো। এ জন্য ফাইনাল দেখতে কোচকে মাঠে পাঠাবো। কোচ নিজ চোখে পরখ করবেন জসপিনকে।
এবারের বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপে বুরুন্ডি যে জাতীয় দল নিয়ে এসেছে তা তাদের চার নম্বর জাতীয় দল। এই তথ্য দেন ম্যানেজার মোতেম্বা। অথচ এরপরও তাদের কাছে বাংলাদেশের সেমিফাইনালে হার ০-৩ গোলে। সব ক’টি গোলই করেছেন মুসলমান ফুটবলার জসপিন। বুরুন্ডি এর আগে ৪-১ গোলে মরিশাসকে এবং ৩-১ গোলে সেশেলসকে পরাজিত করে। জসপিনের প্রথম হ্যাটট্রিক মরিশাসের বিপক্ষে।
জাত স্ট্রাইকার জসপিন। তিন বছর ধরে খেলছেন বুরুন্ডির সর্বোচ্চ লিগে। এইজেল নিয়র এফসির হয়ে প্রতি লিগে তার গোল ২০টির ওপরে। গত লিগের চ্যাম্পিয়ন এই ক্লাব। ফুটবল অ্যাকাডেমিতে হাতেখড়ি এই ফরোয়ার্ডটির। দেশটির অনূর্ধ্ব-১৬, ১৮, ২০ ও ২৩ জাতীয় দলে খেলেছেন তিনি। যদিও এখন তার বয়স উনিশের নিচে। অবশ্য দেশের ক্লাবে তেমন পয়সা পান না তিনি। মাসে দুই হাজার ডলার। তবে বাংলাদেশের কোনো ক্লাব যদি তাকে ইউরোপের ক্লাবের চেয়ে বেশি বেতন দেয় তাহলে জসপিন বাংলাদেশ লিগেই খেলবে জানান মোতেম্বা।


আরো সংবাদ