২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

‘কারো ভাড়া করা বন্দুক হতে চাই না’

-

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, পাকিস্তান যুক্তরাষ্ট্রের সাথে সম্পর্ক রাখতে চায় যথাযথ উপায়ে- যেমন সম্পর্ক রয়েছে আরেক পরাশক্তি চীনের সাথে। তিনি বলেন, পাকিস্তান কারো ভাড়া করা বন্দুক হিসেবে ব্যবহৃত হতে চায় না। সম্প্রতি ওয়াশিংটন পোস্টের সাথে এক সাক্ষাৎকারে একথা বলেছেন ইমরান।

বৃহস্পতিবার ওয়াশিংটন পোস্ট ইমরান খানের এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকারটি প্রকাশ করেছে। যেখানে তিনি বলেছেন, কারো সাথে এমন সম্পর্ক রাখতে চাই না- যারা পাকিস্তানকে ভাড়া করা বন্দুক হিসেবে ব্যবহার করবে, কিংবা টাকার বিনিময়ে কারো হয়ে যুদ্ধ করবে।

ইমরান খান বলেন, এতে যে শুধু আমাদের লোকদের প্রাণহানী হয় তাই নায়, আমাদের উপজাতীয় এলাকাগুলো ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে, জাতি হিসেবে আমাদের মর্যাদাও নষ্ট হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ট্রাম্প প্রশাসন দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই ইসলামাবাদের সাথে সম্পর্ক খারাপ যাচ্ছে ওয়াশিংটনের। ডোনাল্ড ট্রাম্প পাকিস্তানে অর্থ ও সামরিক সহায়তা বন্ধও করেছেন এক দফা। এমনই একটি পরিস্থিতির মধ্যে প্রধানমন্ত্রী দায়িত্ব নিয়েছেন ইমরান খান। তিনি দায়িত্ব নিয়েই ঘোষণা দিয়েছেন পাকিস্তান কারো অনুগত রাষ্ট্র হবে না।

যুক্তরাষ্ট্রের সাথে কেমন সম্পর্ক চান? ওয়াশিংটন পোস্টের সাংবাদিক লিলি ওয়েমাইথের এমন প্রশ্নে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, চীনের সাথে আমাদের সম্পর্ক যেমন- এটি কোন একমাত্রিক সম্পর্ক নয়। এটি দুই দেশের বাণিজ্য সম্পর্ক। যুক্তরাষ্ট্রের সাথেও হতে হবে এমন সম্পর্ক।

ইমরানের নীতি যুক্তরাষ্ট্র-বিরোধী কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমি যুক্তরাষ্ট্র-বিরোধী নই, তাদের কোন নীতির সাথে দ্বিতম পোষন করা মানেই বিরোধী হয়ে যাওয়া নয়।’

ইমরান বলেন, সাথে না থাকলেই ‘বিরোধী’ হয়ে যায় না কেউ, এমন চিন্তা করা সম্রাজ্যবাদী মানসিকতা। তিনি বলেন, ওয়াংশিংটনের সাথে ভারসাম্যপূর্ণ সম্পর্ক চায় ইসলামাবাদ, যেখানে উভয়ের স্বার্থ বিবেচিত হবে।


আরো সংবাদ