২৬ মার্চ ২০১৯

পাকিস্তানি চা বিক্রেতার কাণ্ড

খান টি স্টল - ছবি : সংগৃহীত

ক্রিকেট হোক কিংবা রাজনীতি- ভারত, পাকিস্তানের মধ্যকার যে কোন ইস্যু সহজে শেষ হবার নয়। দুই দেশের মধ্যকার যে কোন ইস্যু দেশ দুটির গণ্ডি ছাড়িয়ে জায়গা করে নেয় আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে। রাজনীতিক, সাংবাদিক, সামারিক বাহিনী থেকে শুরু করে দেশ দুটির নাগরিকরাও কম জাননা কোন কিছুতে। প্রতিপক্ষের ওপর কোন ভাবে প্রাধান্য বিস্তার করতে পারলেই তা ফলাও করে প্রচার করে নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব জাহির করেন।

কিছুদিন আগে পুলওয়ামায় ভারতীয় বাহিনীর ওপর আত্মঘাতি হামলা নিয়ে দুই দেশের মধ্যকার যুদ্ধ পরিস্থিতিতেও দেখা গেছে সেটি। ভারতীয় দুটি বিমান ভূপাতিত করার পরদিন পাকিস্তানের এক টিভি চ্যানেলের সংবাদ পাঠক পর্দায় হাজির হয়েছে সেনাবাহিনীর পোশাক পরে। আবার ভারতীয় দল তাদের সেনাবাহিনীর অবদানকে স্মরণ করে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের একটি ম্যাচে মাঠে নেমেছিল সামরিক বাহিনীর ক্যাপ পরে।

ভারতীয় যে পাইলট বিমান ধ্বংস হওয়ার পর পাকিস্তানের হাতে আটক হয়েছিলেন তাকে নিয়েও উৎসাহের কমতি ছিলো না পাকিস্তানিদের মধ্যে। নিজেদের সেনাবাহিনীর এই কৃতিত্ব প্রচার করতে তারা নিয়েছিলেন একের পর এক কৌশল। যেমন- পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর প্রকাশিত ভিডিওতে দেখা গেছে ভারতীয় পাইলট অভিনন্দন চা খাচ্ছেন আর বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দিচ্ছেন। এক পর্যায়ে তিনি চায়ের প্রশংসা করেন। এই ঘটনার পর ফেসবুক টুইটারসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে একটি ছবি যেখানে দেখা গেছে পাকিস্তান বিমান বাহিনীর অফিসার্স মেসের একটি ক্যাশমেমো। যাতে এক কাপ চায়ের বিল করা হয়েছে। কিন্তু টাকার অঙ্কের জায়গায় লেখা হয়েছে একটি ভরতীয় মিগ-২১ যুদ্ধবিমান। অর্থাৎ পাকিস্তানের এক কাপ চায়ের দাম ভারতের একটি যুদ্ধবিমান।

এসব বিষয় নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার শেষ নেই। এরই মাঝে এবার দেখা গেল আরো অদ্ভূত এক কাণ্ড। পাকিস্তানের ফুটপাতের এক চা বিক্রেতা তার দোকানের সাইবোর্ডে ব্যবহার করেছেন পাইলট অভিনন্দনের ঘটনা। ফুটপাতের ওই চায়ের দোকানটি এক বৃদ্ধের। বৃদ্ধ চা বিক্রেতা তার দোকানের সাইনবোর্ডে চা পানরত ভারতীয় পাইলটের ছবি দিয়ে সাথে উর্দুতে লিখেছেন ‘চা- যা শত্রুকেও বন্ধু বানায়’।

দোকানটির নাম ‘খান টি স্টল’। সাইনবোর্ডে দোকানের নামটি বড় করে লেখায়। তার ঠিক নিচেই লেখা ‘চা- যা শত্রুকেও বন্ধু বানায়’। পাশে পাইলটের ছবি দেয়া।

দোকানটি পাকিস্তানের ঠিক কোথায় তা জানা যায়নি, তবে দেশটির ইংরেজী সংবাদ মাধ্যম দি নিউজের অনলাইন ভার্সনে দেখা গেছে ফুটপাতে টেবিল সাজিয়ে বসেছেন ও ওই চা বিক্রেতা। তার টেবিলের সাথে লাগানো ভারতীয় পাইলটের ছবি দিয়ে তৈরি সাইনবোর্ড। এই ছবিটি পাকিস্তানের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীরা ব্যাপকবাবে শেয়ার করেছেন। অনেকে দোকাদারের বুদ্ধিমত্তার প্রশংসা করেছেন। কেউ বা আবার ভারতকে একটু খোঁচাতে চেষ্টা করেছেন এই ছবি শেয়ার করে।


আরো সংবাদ