১৯ আগস্ট ২০১৯

ভারতে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি না দেয়ায় মুসলিম যুবকের ওপর হামলা

আহত মুসলিম যুবক বাকের - সংগৃহীত

ভারতের রাজধানী দিল্লি লাগোয়া হরিয়ানার গুরুগ্রামে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি না দেয়ায় মুহাম্মাদ বাকের আলম (২৫) নামের এক মুসলিম যুবকের ওপর অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা হামলা চালিয়েছে। গতকাল (রোববার) এ ব্যাপারে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। আক্রান্ত যুবক নামাজ পড়ে টুপি মাথায় দিয়ে বাড়ি ফিরছিল।  

আহত যুবক বাকের বলেন,সদর বাজার লেনের কাছে বেশ কয়েকজন অপরিচিত যুবক তাকে ঘিরে ধরে এবং মাথার টুপি খুলে ফেলে থাপ্পড় মারে৷ দুর্বত্তরা বাকেরকে ‘ভারত মাতা কী জয়’ বলতে বাধ্য করে৷

বাকের বলেন, দুর্বত্তরা জোর করে ‘জয় শ্রীরাম’ বলানোর চেষ্টা করলে আমি তা বলতে না চাওয়ায় আমাকে ধাক্কা দিয়ে রাস্তায় ফেলে লাঠিসোঁটা দিয়ে নির্দয়ভাবে মারধর করে।’   

পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন এ ব্যাপারে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ওই এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে অভিযুক্তদের ধরার চেষ্টা চলছে।

এদিকে, ওই ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে আজ (সোমবার) দিল্লির নবনির্বাচিত বিজেপি এমপি গৌতম গম্ভীর ধর্মনিরপেক্ষ ভারতের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেছেন,গুরুগ্রামে এক মুসলিমকে টুপি খুলে ‘জয় শ্রীরাম’ বলতে বাধ্য করা হয়েছে। এটা নিন্দনীয়। গুরুগ্রাম কর্তৃপক্ষের অবশ্যই এ ব্যাপারে দৃষ্টান্তমূলক পদক্ষেপ নেয়া উচিত।

ক্রিকেটার ও এমপি গৌতম গম্ভীরের ওই মন্তব্যের ফলে বিজেপির একাংশ খুশি নন। তার ওই মন্তব্য বিজেপির বিরুদ্ধে বিরোধীরা ব্যবহার করতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন এক বিজেপি নেতা।

গম্ভীর অবশ্য পাল্টা মন্তব্যে বলেছেন, ধর্মনিরপেক্ষতা নিয়ে তার ভাবনাচিন্তার কেন্দ্রে রয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ‘সবকা সাথ,সবকা বিকাশ’(সবার সঙ্গে সকলের উন্নয়ন) এর দর্শন। তিনি কেবলমাত্র গুরুগ্রামের ঘটনায় নিজেকে সীমাবদ্ধ রাখছেন না। ধর্ম বা জাতপাতের ভিত্তিতে যে কোনো নির্যাতনই নিন্দনীয়। ভারতের ভাবনা,ধারণাই দাঁড়িয়ে আছে সহনশীলতা ও সবার সমন্বয়ে উন্নয়নের ভিত্তির ওপর।

ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর এবার পূর্ব দিল্লি লোকসভা কেন্দ্র থেকে বিজেপির টিকিটে এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। সূত্র : পার্সটুডে।


আরো সংবাদ