২২ আগস্ট ২০১৯

সব অনুপ্রবেশকারীকে চিহ্নিত করে বিতাড়িত করা হবে : অমিত শাহ

অমিত শাহ - ছবি : সংগ্রহ

ভারতের যেকোনো প্রান্তে বসবাস করা অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করা হবে, এবং আন্তর্জাতিক আইন মেনে তাদের বিতাড়িত করা হবে, বুধবার রাজ্যসভায় বললেন দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। আসামের মতো অন্যান্য রাজ্যেও জাতীয় নাগরিকপঞ্জী তালিকা তৈরি করা হবে কিনা, সমাজবাদী পার্টির এমপি জাভেদ আলি খানের প্রশ্নের উত্তর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী একথা জানান।
সুপ্রিম কোর্টের নজরদারিতে আসামের এনআরসি আপডেট করা হচ্ছে, এবং ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে শেষ করে চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করতে হবে। সংসদের উচ্চকক্ষে এদিন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “এটা খুব ভালো প্রশ্ন। অসমের বাসিন্দারা এনআরসি নিয়ে ঐক্যমত, এবং এটা ছিল নির্বাচনী ইস্তেহার (বিজেপি), আর ওপর ভিত্তি করেই ক্ষমতায় ফিরেছে সরকার। দেশের প্রত্যেকটি ইঞ্চিতে বসবাসকারী অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করবে সরকার এবং আন্তর্জাতিক আইন মেনে তাদের বিতাড়িত করা হবে”।
আরও ১ লক্ষ জনের নাম বাদ আসামের নাগরিক তালিকার খসড়া থেকে, জুলাইয়ে চূড়ান্ত তালিকা

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই জানান, এনআরসি সংশোধনের দাবিতে ২৫ লক্ষ সাক্ষরসহ আবেদনপত্র জমা পড়েছে কেন্দ্রীয় সরকার ও রাষ্ট্রপতির কাছে। অনেক ক্ষেত্রেই প্রকৃত নাগরিকের নাম বাদ গেহছে এবং এবং কিছু ক্ষেত্রে ভুয়ো নাম নথিভুক্ত হয়েছে। নিত্যানন্দন রাই বলেন, “সেই কারণেই, সুপ্রিম কোর্টকে সরকার অনুরোধ করেছে, এই উদ্দেশ্যে যাতে সময়সীমা বাড়ানো যায়”।

তিনি বলেন, “দেরি হতে পারে, তবে কোনো ত্রুটি ছাড়াই সঠিকভাবে এনআরসি কার্যকরা হবে”। পাশাপাশি তিনি আরো বলেন, সরকারের লক্ষ্য, কোনো প্রকৃত নাগরিক যাতে এনআরসির বাইরে না থাকেন, তা নিশ্চিত করা।

ভারতে রোহিঙ্গা মুসলিমের সংখ্য কত, সেই প্রশ্নের উত্তরে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই বলেন, “আমাদের কাছে কোনো সঠিক তথ্য নেই। তারা দেশজুড়ে ছড়িয়ে রয়েছে। তাদের কেউ কেউ বাংলাদেশে ফিরে গেছে। আমরা খুব তাড়াতাড়িই তথ্য পাব”।

এনআরসিতে যাতে কোনো অবৈধ অনুপ্রবেশকারীর নাম নথিভুক্ত না হয়, তা নিশ্চিত করাই সরকারের লক্ষ্য। ভারতে বিদেশীদের অবৈধ বসবাস ঠেকাতে, বিদেশী আদালত তৈরি করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।
সূত্র : এনডিটিভি


আরো সংবাদ