১৯ অক্টোবর ২০১৯

সাপ-কুমির নিয়ে মোদিকে হুমকি পাকিস্তানি শিল্পীর

-

মেঝেতে কুমির। হাতে ধরা বিষধর সাপ। এভাবেই কাশ্মির নিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে কড়া বার্তা দিয়েছেন পাকিস্তানের সঙ্গীতশিল্পী ও অভিনেত্রী রবি পীরজাদা।

যদিও সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পর উল্টো বিপাকেই পড়েছেন তিনি। বন্য প্রাণী অধিদফতরের পক্ষ থেকে তাকে নোটিশ দেয়া হয়েছে। জেল-জরিমানা দুই-ই হতে পারে বলেও খবর পাওয়া যাচ্ছে।

চলতি মাসের শুরুতে একদল সাপ আর কুমির নিয়ে এই ভিডিওটি পোস্ট করেন রবি পীরজাদা। ভিডিওতে তিনি বলেছেন, এই উপহার ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে। কাশ্মির নিয়ে তার নয়া নীতির জন্য। এদের মহাভোজে লাগবেন মোদি।

এরপরই রবিকে ঘিরে দানা বাঁধে বিতর্ক। বাড়িতে বেআইনি ভাবে বন্যপ্রাণী রাখার অপরাধেও অপরাধী সাব্যস্ত হয়েছেন তিনি।

যদিও শিল্পী জানিয়েছেন, এর আগেও তিনি একাধিক সংবাদ মাধ্যমের চ্যানেলে সাপ-কুমির নিয়ে উপস্থিত ছিলেন। তখন একবারও বিরোধিতার সম্মুখিন হননি। এবার মোদিকে নিয়ে মুখ খোলার জন্যই কি এত সমালোচনা?

পাশাপাশি তিনি এও জানান, সাপ ও কুমীর তিনি ভাড়া করে নিয়ে এসেছেন ভিডিওটি তৈরি করবেন বলে। তার বাড়িতে কোনও বন্যপ্রাণী বন্দী করে রাখা নেই।

একই সঙ্গে রবি এক চ্যানেলে দেওয়া সাক্ষাৎকারে হতাশা প্রকাশ করে বলেন, তার লক্ষ্য শুধুই মোদি। ভারত নয়। প্রতিবেশী দেশকে তিনি ভীষণ ভালোবাসেন। সম্মান করেন; কিন্তু মোদি তার চোখে বিশ্বাসঘাতক। রবির দাবি, পাকিস্তানিকে পছন্দ না-ই করতে পারেন মোদি। তাই বলে কাশ্মির নিয়ে নিজের দেশের মানুষের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করবেন তিনি! এটা মানা যায় না।

একই সঙ্গে তিনি আঙুল তোলেন নিজের দেশ বিশেষ করে বন্যপ্রাণী বিভাগের দিকেও। তার কথায়, মোদিকে আক্রমণ করার জন্যেই তাকে মিথ্যে অভিযোগে অভিযুক্ত করতে চাইছে তার নিজের দেশ। একে ষড়যন্ত্র ছাড়া আর কী বলা যেতে পারে?


আরো সংবাদ