১৬ নভেম্বর ২০১৯

কাশ্মির নিয়ে মন্তব্য : পাম ওয়েলের ওপর ঝাল ঝাড়বেন মোদি!

-

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ কাশ্মিরে ভারতের নীতির তীব্র সমালোচনা করার পর বিশ্বের শীর্ষ পাম ওয়েল ক্রেতা ভারত দেশটি থেকে এই পণ্য ক্রয় বন্ধ করার কথা ভাবছে। এতে করে এই অঞ্চলে নতুন একটি বাণিজ্যযুদ্ধের সূচনা ঘটেছে।
মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ গত মাসে জাতিসঙ্ঘে বলেন যে ভারত কাশ্মিরে অভিযান চালিয়েছে ও দখল করেছে। এরপর থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি মালয়েশিয়া থেকে পাম ওয়েল কেনা কমিয়ে দিতে পারেন- এমন উদ্বেগের মধ্যে ভারতের অনেক পাম ওয়েল ক্রেতা মালয়েশিয়ার বদলে ইন্দোনেশিয়া থেকে পণ্যটি কিনতে শুরু করেছে।

ভারতের জয়পুরের কাটস সেন্টার ফর ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড, ইকোনমিক্সস অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টের প্রধান বিপুল চ্যাটার্জি বলেন, মালয়েশিয়ার বদলে ইন্দোনেশিয়া থেকে পাম ওয়েল ক্রয় করবে। এছাড়া ইউক্রেন থেকেও ক্রমবর্ধমান হারে তেল সংগ্রহ করবে। তিনি বলেন, এই প্রথম কোনো রাজনৈতিক বক্তব্যের প্রতি অসন্তুষ্টি প্রকাশের জন্য ভারত বাণিজ্যিক অংশীদার হিসেবে তার গুরুত্ব প্রয়োগ করল।

এই অঞ্চলের বাণিজ্য প্রবাহে বাধা সৃষ্টিকারী সর্বশেষ আঞ্চলিক কূটনৈতিক বিরোধ এটি। চলতি বছরের প্রথম দিকে কোরিয়া উপদ্বীপে জাপানের উপনিবেশ নিয়ে দক্ষিণ কোরিয়া ও জাপানের মধ্যে মতানৈক্যের জের ধরে রফতানিতে বিধিনিষেধ জারি করা হয়। এতে পর্যটকের ওপরও প্রভাব পড়ে। আর চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে মেধাসত্ত্বসহ অনেক বিরোধ রয়েছে। এ নিয়ে দুই দেশের মধ্যে বড় ধরনের বাণিজ্যযুদ্ধ শুরু হয়েছে।
ক্ষমতার হাতিয়ার
চ্যাটার্জি বলেন, চীন ও যুক্তরাষ্ট্র প্রায়ই ক্ষমতার হাতিয়ার হিসেবে বাণিজ্যিক সম্পর্ককে ব্যবহার করে। মনে হচ্ছে ভারতও এই খেলায় প্রবেশ করেছে। এখন বাণিজ্য আর বাণিজ্য নয়, এটাও একটি অস্ত্র।

মালয়েশিয়া থেকে ভারত পাম ওয়েল আমদানি বন্ধ করে দিলে তা দেশটির শিল্পে মারাত্মক প্রভাব পড়বে। কারণ পাম হলো মালয়েশিয়ার সবচেয়ে বড় কৃষিজ রফতানি। আর ভারত হলো এই পণ্যটির বৃহত্তম ক্রেতা। ভারত জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রায় ২ বিলিয়ন ডলার মূল্যে ৩.৯ মিলিয়ন টন পাম ওয়েল কিনেছে। গত বছরের চেযে তা তা প্রায় দ্বিগুণ এটি। উল্লেখ্য, গত জানুয়ারিতে নয়া দিল্লি এই পণ্যটির ওপর থেকে আমদানি শুল্ক হ্রাস করে।

কাশ্মির প্রশ্নে মাহাথিরের মন্তব্য ভারতের নাগরিকদের মধ্যেও ক্রোধের সঞ্চার করে। তারা টুইটারে #BoycottMalaysia হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে। তাছানা মালয়েশিয়া সফর না করার জন্য ভারতীয় নেটিজেনরা আহ্বান জানায়।
ভারতীয় ব্যবসায়ীদের মালয়েশিয়ার পাম ওয়েল কেনা বন্ধের ব্যাপারে বুধবার কুয়ালামপুরে সাংবাদিকদের মাহাথির বলেন, এটা হলো ব্যবসায়ীদের প্রতিক্রিয়া। তাদের ব্যক্তিগত সিদ্ধান্তের ব্যাপারে আমরা মন্তব্য করতে পারি না। তিনি বলেন, সরকার যদি বয়কট বা এ ধরনের কোনো উদ্যোগ নেয়, তবে আমরা কূটনৈতিকভাবে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করব।

ভারত যদি মালয়েশিয়া থেকে পাম ওয়েল আমদানির ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করে, তবে মালয়েশিয়া তার কূটনৈতিক সমাধান কামনা করবে বলে মাহাথির বলেন।
ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।
সূত্র : ব্লুমবার্গ

 


আরো সংবাদ

বাবরি মসজিদ রায় : 'মুসলমানরা সুবিচার পায়নি' মেসির চমকে ব্রাজিলকে উড়িয়ে দিলো আর্জেন্টিনা যথাযথ মর্যাদায় ভেটারানস ডে উদযাপিত নাশকতা কি না খতিয়ে দেখা হচ্ছে : রেলমন্ত্রী বাবরি মসজিদ রক্ষায় মুসলিমদেশগুলোকে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে : ইসলামী আন্দোলন কুমিল্লায় ২ কিশোর ও গেটম্যানের বুদ্ধিমত্তায় রক্ষা পেল যাত্রীবাহী ট্রেন রাষ্ট্রপতি দেশে ফিরেছেন সাভার উপজেলা আ’লীগের সম্মেলনে : হাসিনা-সভাপতি রাজিব-সাধারণ সম্পাদক প্রধানমন্ত্রী দুবাই এয়ারশোতে যোগ দিতে আমিরাত যাচ্ছেন আজ ঢাবি থেকে ২৬ জনের পিএইচডি লাভ ইসলামী আন্দোলনের কর্মীদের অবসর গ্রহণের সুযোগ নেই : মহানগর জামায়াত

সকল