১২ ডিসেম্বর ২০১৯

আসামে ফের এনআরসি, হবে সারা ভারতেও : অমিত শাহ

অমিত শাহ - ছবি : সংগৃহীত

ভারতের আসাম রাজ্যের হালনাদাদ করা জাতীয় নাগরিক পঞ্জি তথা এনআরসিতে ধর্মের ভিত্তিতে বিভাজন হয়েছে এই সমালোচনার প্রেক্ষাপটে মুখ খুললেন দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তিনি জানিয়েছেন, আসামসহ সর্বত্র এনআরসি প্রক্রিয়া প্রয়োগ করা হবে। তিনি ভারতীয় পার্লামেন্টে আশ্বাস দেন, ধর্ম নিরপেক্ষভাবেই ভারতের সব নাগরিক ওই তালিকায় স্থান পাবেন।

রাজ্যসভায় বুধবার অমিত শাহ বলেন, “এনআরসি-তে ধর্মের নিরিখে বাদ দেবার কোনে বিধিই নেই। ভারতের নাগরিকরা সকলেই ধর্ম নির্বিশেষে এনআরসি তালিকায় স্থান পাবেন। এনআরসি নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল থেকে আলাদা।”

তিনি আরো বলেন, “এনআরসি প্রক্রিয়া সারা ভারতে প্রয়োগ করা হবে। কোনো ধর্মের মানুষেরই উদ্বেগের কোনো কারণ নেই, এটা এমন একটা প্রক্রিয়া যাতে সকলেই এনআরসির আওতায় আসতে পারেন।”

আসামে এনআরসি প্রক্রিয়া প্রয়োগ করা হয়েছে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে। অমিত শাহ বলেন, সারা ভারতে যখন এনআরসি প্রক্রিয়া বাস্তবায়ন করা হবে তখন তার মধ্যে আসামও পড়বে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আসামে যাদের নাম খসড়া তালিকায় নেই, তারা ট্রাইবুনালে যাওয়ার অধিকারী।

তিনি বলেছেন, “যাদের নাম খসড়া তালিকায় নেই তাদের ট্রাইবুনালে যাবার অধিকার রয়েছে। সারা আসামে ট্রাইবুনাল গঠিত হবে। যারা ট্রাইবুনালে যাবার খরচা জোগাড় করতে পারবেন না, আসাম সরকার নিজ খরচে তাদের জন্য আইনজীবীর ব্যবস্থা করবে।”

নাগরকিত্ব সংশোধনী বিলের সমর্থনে মুখ খোলেন তিনি। তিনি বলেন, পাকিস্তান, বাংলাদেশ, আফগানিস্তানে ধর্মের ভিত্তিতে যেসব হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ, জৈন, খ্রিষ্টান, পারসিদের বৈষম্যের মুখে পড়তে হচ্ছে তাদের রক্ষা করার জন্যই এই বিল।

গত ৮ জানুয়ারি লোকসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল, ২০১৬ পাশ হয়। ওই বিলে ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বরের আগে প্রতিবেশী দেশ থেকে আসা অমুসলিম নাগরিকদের নাগরিকত্ব প্রদানে সুবিধা দেবার কথা বলা হয়েছে।

আসামে চূড়ান্ত এনআরসি তালিকা প্রকাশিত হয়েছে ৩১ অগাস্ট। তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন ১৯,০৬,৬৫৭ জন। মোট ৩,১১,২১,০০৪ জন তালিকায় ঠাঁই পেয়েছেন।
সূত্র : ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস


আরো সংবাদ