২৩ জানুয়ারি ২০২০

মধ্যরাতে নাগরিকত্ব বিল পাস ভারতের পার্লামেন্টে

-

সোমবার মধ্যরাতে ভারতীয় পার্লামেন্ট লোকসভায় পাস হল নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল (সিএবি)। এদিন সাত ঘণ্টা বিতর্কের শেষে নরেন্দ্র মোদি সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ জানিয়ে দেন, ওই বিল পাস হওয়ার ফলে প্রতিবেশী তিন দেশের অ-মুসলিম সংখ্যালঘু শরণার্থীরা দেশের নাগরিকত্ব পাবেন।

তিনি বলেন, ওই আইনের সঙ্গে এ দেশের মুসলিমদের কোনও সম্পর্ক নেই। ওই আইন পাস হলে দেশের মুসলিম সমাজের কোনও সমস্যা হবে না। একই সাথে তিনি বলেন, খুব দ্রুত গোটা দেশে জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি) করা হবে।

এদিন নাগরিকত্ব বিল নিয়ে ভারতীয় পার্লামেন্টে আলোচনা যতদূর গড়িয়েছে কেউ তার সঙ্গে তুলনা করছেন জার্মানির নাৎসি প্রধানের। কারও প্রশ্ন, বেছে বেছে কেন মুসলিমরাই বাদ পড়লো? আপনি তো শুধু সংখ্যালঘুদেরই নিশানা করছেন? সংবিধানকে পাত্তা না দিয়ে।

বিলটি উত্থাপনের পরই বিরোধীরা তীব্র প্রতিবাদ করেন। জম্মু-কাশ্মিরের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের প্রস্তাব সংসদে নিয়ে আসার সময়ও বিরোধীদের আক্রমণে এতটা অস্থির হননি অমিত শাহ। শেষ পর্যন্ত অবশ্য ৩১১-৮০ ভোটে বিলটি পাস করিয়ে নিতে সক্ষম হয় ক্ষমতাসীন দল বিজেপি।

বিরোধী দলীয় এমপি অধীর চৌধুরী অমিত শাহকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হয়েও আপনি যদি আমাদের রক্ষা করতে না পারেন, তা হলে কে করবে?’

অমিত এটাই বলতে চেষ্টা করছিলেন যে, ধর্মের বিভাজন করে এই বিল আনা হয়নি। এই বিল দেশের ০.০০১ শতাংশ সংখ্যালঘুরও বিরুদ্ধে নয়। বিরোধীরা বিলের কথা বিকৃত করছে।

শেষ দিকে নিজের বক্তব্যে মুসলিমদের আশ্বস্ত করে বার্তা দেন অমিত শাহ। জানান, ওই আইনের ফলে মুসলিমদের কোনও ভয় নেই।

আগামী বুধবার পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় নাগরিকত্ব বিল পেশ করবে সরকার। আনন্দবাজার


আরো সংবাদ