২৬ জানুয়ারি ২০২০

বাবরি মসজিদ রায়ের পুনর্বিবেচনার আবেদনের সব মামলা খারিজ

ভারতের সুপ্রিম কোর্ট - ছবি : এনডিটিভি

ভারতের অযোধ্যার বাবরি মসজিদের জায়গা নিয়ে মামলার রায়ের পুনর্বিবেচনার আবেদন জানিয়ে করা ১৯টি মামলাই খারিজ করে দিয়েছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। সাধারণ রীতি অনুযায়ী খোলা আদালতে নয়, এই মামলার শুনানি হয় প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদের চেম্বারে।

মামলাকারীদের মধ্যে রয়েছে অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনেল ল বোর্ড এবং নির্মোহি আখরা। এছাড়াও ৪০টি নাগরিক অধিকার সম্পর্কিত কর্মীও মামলা দায়ের করেন, যদিও তারা মূল মামলার অংশ ছিলেন না। সমস্ত মামলাকারী জোর দিয়ে জানিয়েছেন, তারা শান্তি বিঘ্নিত করতে চান না। তবে এও জানিয়েছেন যে, সমস্ত শান্তিই বিচারপ্রক্রিয়ার সহায়ক হওয়া উচিত।

মুসলিম মামলাকারীরা বলেছেন, মামলার প্রতি শ্রদ্ধা রেখে তারা সবসময়েই শান্তি চান, তবে তারা সবসময়ই সহিংসতা ও অন্যায্যতার শিকার হন। এই পুনর্বিবেচনার আবেদন তাদের বিচারের অভীষ্ট লক্ষেই বলেও জানিয়েছেন মুসলিম মামলাকারীরা।

একটি মামলায় বলা হয়েছে, এই মামলায় সুপ্রিম কোর্টের শুনানি ‘ধ্বংসের মারাত্মক অবৈধতাকে ক্ষমা করা হয়েছে, অন্যায়ভাবে সীমালঙ্ঘন করা এবং মসজিদ ভাঙ্গাসহ আইনের শাসন ভঙ করা এবং তা ধ্বংস করা হয়েছে।’

মামলার আবেদনে নির্মোহি আখরা জানিয়েছে, তাদের ভূমিকা নিয়ে খোঁজখবর করছেন তারা। ট্রাস্টে আখরার পক্ষ থেকে ‘উপযুক্ত প্রতিনিধি’ রাখার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট, ওই জায়গায় মন্দির নির্মাণের দেখভাল করবে ওই ট্রাস্ট।

৯ নভেম্বর, অযোধ্যা মামলার রায় দেন তখনকার প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ। সেই রায়ে অযোধ্যার ২.৭৭ একর জমির সবটাই রামলালাকে দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। পাশাপাশি মসজিদ নির্মাণের জন্য অযোধ্যায় ‘উপযুক্ত, ভালো জায়গা’য় সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে পাঁচ একর জমি দেয়ার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে নির্দেশ দেয় শীর্ষ আদালত।

আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার রিপোর্ট তুলে ধরে সুপ্রিম কোর্ট। সেখানে বলা হয়, মসজিদ নির্মাণের আগে সেখানে কোনো নির্মাণ ছিল, তবে তা মন্দির কিনা, তার উল্লেখ নেই। ১,০৪৫ পাতার নির্দেশে সুপ্রিম কোর্ট সহমত পোষণ করে যে, মসজিদের অধিকার থেকে অন্যায়ভাবে মুসলিমদের বঞ্চিত করা হয়েছিল।

সূত্র : এনডিটিভি


আরো সংবাদ