২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০

দেশ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে : ভারতের সাবেক পররাষ্ট্র সচিব

শিবশঙ্কর মেনন - ছবি : দ্য হিন্দু

ভারতের সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জির (এনআরসি) বিরুদ্ধে এ বার মুখ খুললেন দেশটির প্রাক্তন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা তথা প্রাক্তন পররাষ্ট্র সচিব শিবশঙ্কর মেনন। মোদি সরকারের তীব্র সমালোচনা করেছেন তিনি। তার মতে, কূটনৈতিকভাবে নিজেদের বিচ্ছিন্ন করে ফেলেছে ভারত। শুধুমাত্র দেশের অন্দরেই নয়, আন্তর্জাতিক মহলেও এখন প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

সিএএ এবং এনআরসি নিয়ে শুক্রবার দিল্লিতে একটি বিশেষ আলোচনাসভায় যোগ দেন মেনন। সেখানে তিনি বলেন, ‘জম্মু-কাশ্মিরসহ একাধিক ইস্যুতে কূটনৈতিকভাবে নিজেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলেছে ভারত। শুধুমাত্র দেশের ভেতরেই নয়, আন্তর্জাতিক মহলেও এখন ভারতের সমালোচনা শুরু হয়েছে। গত কয়েক মাসে ভারত সম্পর্কে সকলের ধারণাই পাল্টে গিয়েছে। এমনকি বন্ধু দেশগুলোও পিছু হটতে শুরু করেছে। বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, ওদের নিজেদের মধ্যে মারামারি করতে দিন। আমাদের বন্ধুরাই যদি এমন ভাবেন, তাহলে শত্রুরা কী ভাবছেন ভাবুন। এই পরিস্থিতির জন্য আমরা নিজেরাই দায়ী।’

সিএএ এবং এনআরসি নিয়ে দেশজুড়ে বিক্ষোভের মধ্যেই গত মাসে ভারতের দূত হিসাবে মার্কিন কংগ্রেসের একটি প্রতিনিধি দলের সাথে পূর্বনির্ধারিত বৈঠক এড়িয়ে যান পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। তা নিয়ে বিস্তর পানিঘোলা হয়েছে। প্রশ্ন উঠেছে, জম্মু-কাশ্মিরে কেন্দ্রীয় সরকারের নীতি নিয়ে আঙুল ওঠা ঠেকাতেই কি বৈঠক এড়িয়ে যান তিনি? কেন্দ্রীয় সরকার তা অস্বীকার করলেও, এ দিন সেই প্রশ্নই উস্কে দেন মেনন। তিনি বলেন, ‘এই বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া সম্পর্কে ভালোই অবগত আমরা। তাই মার্কিন প্রতিনিধিদের সাথে পূর্বনির্ধারিত বৈঠক এড়িয়ে যেতে হয়েছে পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে।’

সিএএ এবং এনআরসি নিয়ে শুরু থেকেই বিরোধীদের তোপের মুখে পড়েছে মোদি সরকার। বেছে বেছে অমুসলিমদের নাগরিকত্ব দেয়া নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন। এতদিন ধর্মনিরপেক্ষ দেশ হিসেবে মর্যাদা পেলেও মোদি সরকারের আমলে ভারত ধীরে ধীরে পাকিস্তানের পথে হাঁটছে বলে অভিযোগ করেছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের একাংশ। এ দিন একই কথা বলেন মেননও। তিনি বলেন, ‘এককথায়, গত কয়েক মাসে পাকিস্তানের সাথে নিজেদের এক আসনে বসিয়ে ফেলেছি আমরা। মনে রাখবেন, ওরা কিন্তু অসহিষ্ণু দেশ।’

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

দেখুন:

আরো সংবাদ