২৬ আগস্ট ২০১৯

হাতের মুঠোয় অ্যাপ

-

স্মার্টফোনের আগমনে প্রযুক্তির হাতে মানুষ নিজেকে করেছে সমর্পণ। যদিও এই সমর্পণের ফলাফল ভালো নাকি খারাপ সেই সিদ্ধান্তে সহজেই উপনীত হওয়া সম্ভব নয়। আমাদের দৈনন্দিন কাজের সুবিধার্থে বর্তমানে স্মার্টফোনে চালু হয়েছে হাজারো রকমের অ্যাপস, যা দিয়ে যেকোনো কিছু করা সম্ভব। প্রতিদিনের প্রয়োজন থেকে শুরু করে আমাদের জীবনে যা যা প্রয়োজন হয় তার সমাধান মেলে এই স্মার্টফোনেই। স্মার্টফোনের বরাতে ছুটিতে গেছে অ্যালার্ম ঘড়িও। আজকাল ঘুম থেকে ওঠার জন্য অনেকেই আর অ্যালার্ম ঘড়ির চাবি ঘোরান না।
পড়ালেখার অ্যাপ
নিত্যনতুন অ্যাপগুলো পড়াশোনা, ক্লাসে যোগদান থেকে শুরু করে শিক্ষার্থীদের ব্যক্তিগত নিরাপত্তার ক্ষেত্রেও সহায়তা করছে অ্যাপ। ক্লাসে যখন শিক্ষক পড়াতে থাকেন, তখন পুরো মনোযোগ দিয়ে নোটবুকে প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো টুকে নিতে একটু বেগ পেতে হয়। কখনো কখনো লেকচারের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে তথ্যগুলো টুকে রাখা কঠিন হয়ে পড়ে। আর এ সমস্যা সমাধানেই সঙ্গ দেবে লেকচার ক্যাপচার অ্যাপ, যা গোটা লেকচারই রেকর্ড করে রাখবে। আইপ্যাড ব্যবহারকারীদের কাছে সাউন্ডনোট জনপ্রিয় লেকচার ক্যাপচার অ্যাপ। এটি একই সাথে নোটপ্যাড ও অডিও রেকর্ডারের কাজ করে। এ ছাড়া লেকচার ক্যাপচার, নোটস প্লাস ও অডিও মেমোস ফ্রি- দ্য ভয়েস রেকর্ডারও ভালোমানের সহায়তাকারী অ্যাপ।
স্টুডেন্ট প্ল্যানার অ্যাপ ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। কাগজের ব্যবহারকে একেবারেই বাদ দিয়ে ফোন ও অন্য ডিভাইসে এ অ্যাপ ব্যবহারকারীকে ক্লাসের সময় ও বিস্তারিত সম্পর্কে রিমাইন্ডার দিয়ে থাকে। অ্যান্ড্রয়েড প্লার্টফর্মে টাইমটেবিল এ রকম জনপ্রিয় একটি স্টুডেন্ট প্ল্যানার অ্যাপ। মাই ক্লাস শিডিউল ও ক্লাস টাইমটেবিলও অন্যতম জনপ্রিয় স্টুডেন্ট প্ল্যানার অ্যাপ।
শিক্ষার্থীদের ব্যক্তিগত নিরাপত্তায় সহায়তা করছে অ্যাপ। হোক ক্যাম্পাসের ভেতর কিংবা বাইরে, যেকোনো স্থানেই। অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস উভয়ের জন্য প্রযোজ্য ‘সার্কেল অব সিক্স’ শিক্ষার্থীদের তাদের কাছের বন্ধুদের সাথে যুক্ত রাখবে। কোনো সমস্যায় কাছের ছয়জন বন্ধুকে যেন একটি বাটন চেপেই কল দেয়া যায়, সে ব্যবস্থা রয়েছে এ অ্যাপে। সেফটি অ্যাপগুলোর মধ্যে অন্যতম বিসেফ, রিঅ্যাক্ট মোবাইল ও গার্ডিয়ান সেন্ট্রাল স্টুডেন্ট।
দ্বিতীয় ভাষা হিসেবে ইংরেজির প্রয়োজনের কথা নতুন করে বলার কিছু নেই। স্মার্টফোনের অনেক সুবিধার একটি হলো এটি ব্যবহার করে ভাষা শেখার সুযোগও রয়েছে। ইংরেজি না জানার ফলে নানা অসুবিধায় পড়তে হয় অনেককেই। স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে কর্মক্ষেত্রে ইংরেজি না জানলে বিপাকে পড়তে হয়। এ ক্ষেত্রে আপনার হাতের স্মার্টফোনটি হতে পারে ইংরেজি শেখার সহযোগী।
লার্ন ইংলিশ গ্রামার ইংরেজি শেখার অ্যাপটি ব্রিটিশ কাউন্সিলের তৈরি। এটি ইংরেজি ব্যাকরণ যথাযথভাবে শিখতে সাহায্য করে। যারা ইংরেজি গ্রামার কম বোঝেন বা দুর্বলতা রয়েছে তাদের জন্য চমৎকার একটি অ্যাপ। এতে এক হাজারের বেশি প্রশ্ন রয়েছে। ব্যবহারকারীর ধরন অনুযায়ী অ্যাপটিতে রয়েছে নানা লেভেল। এ রকম আরেকটি অ্যাপ হলো কেনডিজি ডটমি। এটি ছোট থেকে বড় সবার জন্য উপযোগী এ অ্যাপ। ইংরেজি শব্দভাণ্ডার বাড়াতে এতে বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা ও গেইম খেলার সুবিধা রয়েছে। শুধু ইংরেজি ব্যাকরণ ও শব্দ চয়নই নয় বরং কথা বলার ক্ষেত্রেও সাহায্য করবে এটি। অ্যাপটি ব্যবহারকারীর প্রতিদিনের অগ্রগতির ওপর নজর রাখবে। ভোকডটকম হলো প্রতিনিয়ত চ্যালেঞ্জের মাধ্যমে নতুন শব্দ চেনার অ্যাপ। প্রতিবার চেষ্টার পর ভুলগুলো তুলে ধরা এবং পুনরায় প্রদর্শন করার মাধ্যমে সহজে শিখে নেয়া যাবে নতুন শব্দ। এটি থেকে কোনো শব্দের সংজ্ঞা, উচ্চারণ, ব্যবহার ইত্যাদিও জানা যাবে। এতে ৯০ সেকেন্ডের কিছু গেইম আছে। এর ফলে খেলার ছলে ইংরেজিতে দক্ষতা বাড়ানো সম্ভব।
স্মার্টফোন যখন স্ক্যানার
স্মার্টফোনের এ যুগে স্ক্যানারের বিকল্প হতে পারে আপনার স্মার্টফোনটি। কোনো ডকুমেন্ট থেকে কোনো কিছু স্ক্যান করার বহুল ব্যবহৃত অ্যাপ ক্যাম স্ক্যানার। এটির সাহায্যে মোবাইল ফোনের ক্যামেরা দিয়ে স্ক্যানের কাজটি করা যায়। অর্থাৎ মোবাইলের ক্যামেরা দিয়ে তোলা ছবি স্ক্যান কপিতে রূপান্তর হবে। অ্যাপটি স্ক্যান করা ইমেজের টেক্সট ও গ্রাফিক্স ক্লিয়ার ও শার্প করে হাই রেজুলেশনের ডকুমেন্টে রূপান্তর করে। এটি দিয়ে ডকুমেন্টের নাম এডিট, ওয়াটার মার্ক যুক্ত করা এবং মোবাইল ফোন দিয়ে ডকুমেন্ট সম্পর্কে টীকা যুক্ত করা যাবে। গোপনীয় ফাইল হয়ে থাকলে পাসওয়ার্ড দিয়ে লক করেও রাখা যাবে। ক্যাম স্ক্যানারের সাইটে লগ ইন করা থাকলে ফাইলগুলো ক্লাউডে ব্যাকআপ থাকবে এবং এ ফাইলগুলো স্মার্টফোন, ট্যাবলেট ও কম্পিউটার থেকেও এক্সেস করা যাবে। এ ছাড়া গুগল ড্রাইভ, ড্রপবক্সসহ বেশ কিছু থার্ডপার্টি ক্লাউডে ব্যাকআপ রাখার সুবিধা মিলবে অ্যাপটিতে। অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস ব্যবহারকারী অ্যাপটি ডাউনলোড করে সহজেই ব্যবহার করতে পারবেন। স্ক্যানবুট অ্যাপটি অনেকটা ক্যাম স্ক্যানার অ্যাপের মতোই কাজ করে। এটির সাহায্যে কোনো ডকুমেন্ট স্ক্যান করার পর ফাইলটিকে সরসারি পিডিএফে পরিণত করা যাবে। অনেক বেশি ফাইল স্ক্যান করা হলে তা সহজে খুঁজে পেতে রয়েছে সার্চ ফিচার। সম্পূর্ণ অফলাইনে কাজ করবে অ্যাপটি। ফলে একবার ডাউনলোড হলে ইন্টারনেট সংযোগের প্রয়োজন হবে না। গুগল প্লেস্টোরে মিলবে অ্যাপটি।
ধূমপান ছাড়াবে অ্যাপ
ধূমপান ছাড়ার জন্য অনেকেই প্রতিনিয়ত চেষ্টা করেন। কিন্তু তাদের চেষ্টা বেশির ভাগ সময় কাজে আসে না। দুই-একদিন বিরতির পর আবারো শুরু করেন। ডিজিটাল উপায়ে ধূমপানের ভয়াবহতা থেকে রক্ষা পেতে চমৎকার পথ খুলে দিয়েছেন কয়েকজন প্রযুক্তিবিদ। তাদের তৈরি করা মোবাইল অ্যাপই ধূমপান ছাড়াবে।
ধূমপায়ীকে এই খারাপ অভ্যাস থেকে দূরে থাকতে বাধ্য করবে। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি খড়গপুরের (আইআইটি কেজিপি) প্রযুক্তিবিদরা অ্যাপটি তৈরি করেছেন। নির্মাতারা বলছেন, মূলত হাতের রিস্ট ব্যান্ডের সাথে অ্যাপটির সংযোগ থাকবে। যা হাতের নড়াচড়ায় নজরদারি চালাবে। সিগারেট ধরালেই তার স্বজন, বন্ধু বা চিকিৎসকের কাছে বার্তা পৌঁছে যাবে। আর তারাই ধূমপান থেকে বিরত থাকতে সতর্ক বা বাধ্য করবে। ধূমপান ছাড়ানোর জন্য বিশ্বে এটিই প্রথম অ্যাপ। অ্যান্ড্রয়েড ভিত্তিক এই অ্যাপটি এখনো পরীক্ষামূলকপর্যায়ে রয়েছে।

 


আরো সংবাদ