১৯ অক্টোবর ২০১৯

শিশুদের ‘গায়ে হাত তুলে’ শাস্তি নিষিদ্ধ করলো স্কটল্যান্ড

প্রতীকী ছবি -

ব্রিটেনের স্কটল্যান্ডে অভিভাবকদের জন্য শিশুদের চড় বা থাপ্পড় দেয়াকে ফৌজদারী অপরাধ হিসেবে গণ্য করে নতুন করা হয়েছে। ‍বৃহস্পতিবার স্কটিশ পার্লামেন্টে ভোটাভুটির মাধ্যমে নতুন এই আইন প্রণয়ণ করা হয়। অর্থাৎ শিশুদের শাস্তি দেয়ার ক্ষেত্রে আঘাত করা নিষিদ্ধ হল এই আইনের ফলে।

এতদিন ব্রিটেনের অন্যান্য রাজ্যের মতো স্কটল্যান্ডেও ষোল বছরের নীচে কোন শিশু বেশি দুষ্টুমি বা অন্যায় করলে তাদের অভিভাবকরা শারীরিকভাবে শাস্তি দিতে পারতো ; কিন্তু নতুন আইনের মাধ্যমে সে পন্থা বন্ধ করলো পার্লামেন্ট।

ইংল্যান্ড, স্কটল্যান্ড, নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড ও ওয়েলস এই চারটি রাজ্যের সমন্বয়ে মূলত ব্রিটেন বা যুক্তরাজ্য দেশটি গঠিত। সবগুলো অংশের অধিকাংশ কার্যক্রম ব্রিটিশ পার্লামেন্টের মাধ্যমে পরিচালিত হয়। তবে প্রয়োজনে রাজ্যগুলো নিজেদের পার্লামেন্টের মাধ্যমে নতুন আইন প্রবর্তন করতে পারে।

স্কটল্যান্ডের পার্লামেন্টে গ্রীন পার্টির সদস্য জন ফিনিয়ে কিছুদিন আগে একটি বিল উত্থাপন করেন। যে বিলে বলা হয়, বড়দের শারীরিক আঘাত করা যেমন ফৌজদারী অপরাধ তেমনি ষোল বছরের নীচের শিশুদের বেলায় একই অপরাধ হিসেবে গন্য করা উচিত। বিলটিতে সমর্থন দিয়েছে স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টি, লেবার পার্টি ও লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির সদস্যরা। তবে বিলে বিরোধীতা করেছে ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির সদস্যরা। পরে অধিকাংশের ভোটে স্কটল্যান্ডে ১৬ বছরের নীচের শিশুদের শারীরিকভাবে আঘাত করাকে ফৌজদারী অপরাধ গন্য করে বিলটি পার্লামেন্টে পাশ হয়।

নতুন আইন পাশের বিরোধীতা করে কনজারভেটিভ পার্টি ও কিছু সংগঠন বিবৃতি দিয়েছে। তাদের মতে, পার্লামেন্টে অধিকাংশ দলের এমপিরা বিলে সমর্থন করলেও স্কটল্যান্ডের অধিকাংশ জনগন এই বিলের বিরুদ্ধে। শিশুদের শাসন করার জন্য বর্তমানে যে আইন আছে সেটাই যথেষ্ট। নতুন করে আইন করার প্রয়োজন ছিল না। নতুন আইন অভিভাবকদের অপরাধী হওয়ার ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দিলো।

তবে জন ফিনিয়ের প্রস্তাবে সমর্থন করেছে স্থানীয় অধিকাংশ শিশু দাতব্য প্রতিষ্ঠানগুলো।

প্রথম দেশ হিসেবে সুইডেন ১৯৭৯ সালে শিশুদের গায়ে আঘাত না করার আইন করে। আর ব্রিটেনের মধ্যে প্রথম এই আইন করলো স্কটল্যান্ড। স্কটল্যান্ড পৃথিবীর ৫৮তম দেশ যারা ষোল বছরের নীচের শিশুদের গায়ে আঘাত না করার আইন করলো।


আরো সংবাদ