২১ মার্চ ২০১৯

দল বেঁধে পাইথনের পিঠে... (ভিডিও)

সাপের পিঠে চড়ে পথ পাড়ি দিচ্ছে ব্যাঙের দল - ডেইল মেইল

ইয়া লম্বা এক বিষাক্ত পাইথন। সাড়ে তিন মিটার দীর্ঘ। তার পিঠে চড়ে আছে ১০টি ব্যাঙ! ভয়ঙ্কর এই ছবি গত বছর ভাইরাল হয়েছিল। অস্ট্রেলিয়ার পশ্চিমাঞ্চলের একটি ফার্ম থেকে ছবিটি তুলেছিলেন এক কৃষক। হাজার হাজারবার ভিউ হওয়ার পর বিচিত্র এই ছবিটি সম্পর্কে মুখ খুলেছেন তিনি। জানিয়েছেন, কেন সাপের পিঠে চড়ে পথ পাড়ি দিয়েছিল ব্যাঙগুলো?

ভাইরাল হওয়া ছবিটি তুলেছেন অ্যান্ড্রু মোক। তিনি টুইটারে জানান সেই ঘটনা।

বলেন, 'আমার ভাইয়ের খালে ব্যাঙগুলোর আবাস ছিল। কিন্তু সেটি পরিস্কার করায় ব্যাঙগুলো বের হয়ে আসে। কয়েকটি ব্যাঙ লাফিয়ে এদিক-সেদিক ছুটে যায়। কিন্তু বেশিরভাগই সহজ পথ ধরে। তারা সারি বেঁধে ফার্মে থাকা একটি পাইথনের পিঠে চড়ে বসে। অদ্ভূত ব্যাপার হলো, পাইথনটিও কোনো আক্রমণ না করে তাদের নিয়ে চলতে থাকে।'

ছবিটি দেখে প্রশ্ন জাগা স্বাভাবিক, পাইথনটি কেন ব্যাঙগুলোকে আক্রমণ করেনি?

প্রথম কথা হলো, এগুলো কোনো সাধারণ ব্যাঙ নয়। এরা 'কেন টোডস' নামে পরিচিত। এই জাতীয় ব্যাঙগুলো খুব বিষাক্ত হয়। ওই এলাকার বেশিরভাগ প্রাণীই জানে এই ব্যাঙ খেলে নিশ্চিত মৃত্যু। যখন এই ব্যাঙ বিপদে পড়ে, তখন এক ধরণের সাদা-জাতীয় পদার্থ নিঃসৃত করে, যা মারাত্মক বিষাক্ত। পাইথনেরও তা অজানা নয়। তাই হয়ত ব্যাঙগুলো শিকারের কথা গুণাক্ষরেও মাথায় আনেনি।

ছবিটি দেখে একজন মন্তব্য করেছেন, 'পাইথনটির কোনো উপায় ছিল না। কারণ সে জানতো ব্যাঙগুলো বিষাক্ত।'

আরেকজন বলেছেন, 'ওই এলাকায় ব্যাঙগুলোর যে রাজত্ব চলে, তা এই ঘটনা থেকেই বুঝা যায়।'

ছবিটি শুধু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেই সারা ফেলেনি, এটি নজরে পড়েছে অস্ট্রেলিয়ার মিউজিয়াম কর্তৃপক্ষ এবং এনএসডব্লিউ বিশ্ববিদ্যালয়ের উভয়চড় প্রাণী বিশেষজ্ঞ ড. জডি রওলির।

দেখুন সেই ঘটনার ভিডিও -


আরো সংবাদ