২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০

অন্তঃসত্ত্বা নারীদের ভিসা দেয়া বন্ধ যুক্তরাষ্ট্রে

'আমেরিকান ড্রিম' আরো ফিকে করে দিচ্ছেন ডন! অভিবাসন নীতিতে আরো কঠোর পদক্ষেপের পথে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ বার্থ ট্যুরিজম রুখতে বৃহস্পতিবার নয়া অভিবাসন নীতি ঘোষণা করে বসল হোয়াইট হাউস৷ অন্তঃসত্ত্বা নারীদের ভিসা নীতিতে রাশ টানল আমেরিকা৷ গর্ভবতী নারীদের আর দেদার ভিসা দেবে না মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৷ হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, অস্থায়ী বি-১ ও বি-২ ভিজিটর ভিসা আর বিদেশি নাগরিকদের দেয়া হবে না, যাঁরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এসে সন্তানের জন্ম দিতে চাইছেন নাগরিকত্বের জন্য৷

শুক্রবার থেকেই নয়া নীতি চালু হয়ে গেছে৷ হোয়াইট হাউস এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, বিদেশি নাগরিকরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে সন্তানের জন্ম দিয়ে স্থায়ী মার্কিন নাগরিকত্ব নিচ্ছেন৷ মার্কিন নিয়ম অনুযায়ী, আমেরিকার মাটিতে কোনো শিশু জন্মালে সে অটোমেটিক ভাবেই স্থায়ী মার্কিন নাগরিকত্ব পেয়ে যায়৷ এটা মার্কিন প্রশাসন বন্ধ করে দিয়ে৷ হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র স্টিফেন গ্রিসামের কথায়, 'মার্কিন নাগরিকত্বে অখণ্ডতা বজায় রাখতে আমরা দায়বদ্ধ৷ তাই বার্থ ট্যুরিজমের নামে যে সব বিদেশিরা আমেরিকায় এসে সন্তানের জন্ম দিয়ে নাগরিকত্ব পাওয়ার ফন্দি আঁটছেন, তাঁদের আর অস্থায়ী বি-১ ও বি-২ ভিজিটর ভিসা দেয়া হবে না৷'

বার্থ ট্যুরিজমকে অভিবাসন নীতিতে 'বড় ফাঁক' আখ্যা দিয়ে গ্রিসাম জানান, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থে এই ফাঁককে কাজে লাগানোর দেদার প্র্যাক্টিস বন্ধ করা দরকার৷

বেআইনি অভিবাসন রোখার জন্য প্রশাসনকে যেকোনো রকম ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন ট্রাম্প৷ এর আগে সংবিধান সংশোধন করে জন্মাধিকার নাগরিকত্ব নীতিটাই তুলে দেয়ার হুমকি দিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প৷ নতুন নীতিতে, যদি কোনো বিদেশি নাগরিক মার্কিন ভিসার আবেদন করেন, তা হলে খতিয়ে দেখা হবে, ওই ব্যক্তি স্রেফ বেড়াতে আসছেন, নাকি সন্তানের জন্ম দিয়ে মার্কিন নাগরিকত্ব পেতে চাইছেন৷ সব দিক খতিয়ে তারপরেই ভিসা ইস্যু করা হবে৷
সূত্র : নিউজ ১৮

 


আরো সংবাদ